চাণক্য শিক্ষক ছাড়াও ছিলেন একজন মহান পণ্ডিত। চাণক্য মানব চরিত্রকে প্রভাবিত করে এমন প্রতিটি বিষয় সম্পর্কে গভীর জ্ঞান ছিল। চাণক্য দক্ষ অর্থনীতিবিদ পাশাপাশি সমাজবিজ্ঞানীও ছিলেন। চাণক্য বিশ্বখ্যাত তক্ষশিলা বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে যুক্ত ছিলেব। চাণক্য একই বেদ পুরাণ এবং বিভিন্ন বিষয় নিয়ে পড়াশোনা করেছিলেন। বিশেষ বিষয় হল পরবর্তীকালে চাণক্যও এই বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতার কাজ করেছিলেন, অর্থাৎ তিনি তক্ষশীলা বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক হয়েছিলেন।

আরও পড়ুন- অগ্রহায়ণ মাস কেমন প্রভাব ফেলবে কর্কট রাশির উপর, জেনে নিন

চাণক্যের মতে, প্রতিটি ব্যক্তির জীবনে খারাপ সময় আসে। এই খারাপ সময় ব্যক্তিকে অনেক কিছু শেখায়। চাণক্যের মতে, সংকটের সময়ে একজন ব্যক্তি ভাল-মন্দের পার্থক্য বোঝা যায়। চাণক্যের মতে, তাই খারাপ সময়ে ধৈর্য হারালে চলবে না। খারাপ সময় চিরকাল থাকে না এই খারাপ সময়টি নেতিবাচকভাবে নেওয়া উচিত নয়। খারাপ সময়ে, এই তিনটি সম্পর্কের আসল বাস্তবতা জানা যায়, আসুন জেনে নেওয়া যাক সেই সম্পর্কগুলি-

আরও পড়ুন- শনিবার ৪ রাশির কর্মস্থানে সমস্যা দেখা দিতে পারে, দেখে নিন আপনার রাশিফল

স্বামী-স্ত্রী: চাণক্যের মতে খারাপ সময়ে বোঝা যায় স্বামী বা স্ত্রী কেমন মানুষ। খারাপ সময় এলে স্ত্রী বা স্বামী যদি ছায়ার মতো দাঁড়িয়ে থাকে তবে সবচেয়ে খারাপ সময়টিও কেটে যায় সহজেই। খারাপ সময়ে, যদি আপনার কাছের মানুষ আপনার পাশে যে কোনও পরিস্থিতিতে ছায়ার মত থাকে তবে তিনিই আপনার জীবনের উপযুক্ত সঙ্গী।

বন্ধু: চাণক্যের মতে, এই পৃথিবীতে দুই ধরণের বন্ধু রয়েছে। প্রথম যে আপনার সঙ্গে বন্ধুত্ব করবে আপনার থেকে সুবিধা নিতে। এই জাতীয় বন্ধুরা কেবল তখনই আসেন যখন আপনি তাদের কিছু দেওয়ার মতো অবস্থানে থাকেন। অন্যান্য বন্ধুরা হল যারা হৃদয়ের সঙ্গে সংযুক্ত হন। এই জাতীয় বন্ধুরা খারাপ সময়েও পাশে দাঁড়িয়ে থাকে। খারাপ সময়ে, যারা এই জাতীয় বন্ধুদের সাহায্য পেয়েছেন তাঁদের সহজে হাতছাড়া করবেন না।

চাকর: চাণক্য অনুসারে, খারাপ সময়ে একজন চাকরকেও চিহ্নিত করা হয়। যিনি আপনার সেবার জন্য প্রস্তুত থাকেন তিনি খারাপ সময় আসার পরেও প্রকৃত দাস থাকে কিনা তা বুঝতে পারবেন। যারা খারাপ সময়েও পাশে থাকেন এই জাতীয় লোকদের সর্বদা শ্রদ্ধা করা উচিত।