যারা হিন্দু ধর্মে বিশ্বাসী তাদের ঘরে অবশ্যই ঈশ্বরের কোনও না কোনও রূপের ছবি রয়েছে। এই ছবিগুলি আমাদের ইতিবাচক শক্তি দেয়। তবে ঠাকুরের ছবি ঘরে রাখার অনেকগুলি বিধি রয়েছে। যেমন মনে করা হয় পবনপুত্র হনুমান এর কোন ছবি বাড়িতে রাখলে নেতিবাচক প্রভাব বৃদ্ধি পায়। কোনও রকম বাধা বিপত্তি ঘরে প্রবেশ করতে পারে না। এটা বিশ্বাস করা হয় যে হনুমান তাঁর ভক্তদের সকল প্রকার বাধা থেকে রক্ষা করেন। এমনকী ভক্তদের রাহু-কেতু এবং শনি গ্রহের খারাপ প্রভাব থেকে রক্ষা করে। নেতিবাচক শক্তি ঘরে প্রবেশে বাধা পায়।

এই ছবিগুলি রাখবেন না -
বজরঙ্গবলীর এমন ছবি দেখা উচিত নয় যাতে তাকে তাঁর বুক চিরে ফেলা হতে দেখা যায়। 
কোন ছবিতে হনুমান ভগবান রাম এবং লক্ষণকে তাঁর কাঁধে রেখেছিলেন, সেই চিত্রটি স্থাপন করা উচিত নয়। 
সঞ্জীবনীর সঙ্গে হনুমান উড়চ্ছেন এই ছবি ঘরের জন্য শুভ মনে করা হয় না 
হনুমান লঙ্কা জয়ের সময় রাক্ষস এবং অধার্মিক মানুষকে হত্যা করছেন। বজরঙ্গবলীর এই ধরনের ছবি ঘরে না রাখাই ভালো।

এই ছবিগুলি শুভ -
বজরঙ্গবলীর হলুদ পোশাকে থাকা ছবি ঘরে সুখ এবং সমৃদ্ধি বজায় রাখে।
লাল পোশাক বা ধূতি পরা হনুমানের ছবি বাড়িতে পড়াশোনায় বাচ্চাদের উন্নতি করে।
ঘরে রাম দরবারের ছবি রাখলে পরিবারে ভালবাসা ও সম্প্রীতি বাড়ে।
বাড়ির প্রধান প্রবেশদ্বারে পঞ্চমুখী হনুমানের ছবি নেতিবাচক শক্তি বাড়িতে প্রবেশ করতে বাধা দেয়।
বজরঙ্গবলীর এমন একটি ছবি রাখা উচিত যাতে তিনি তাঁর প্রভু ভগবান রামের সেবায় মগ্ন, ঘরে এই ছবি রাখলে কোনওদিন টাকার অভাব হয় না বলে মনে করা হয়।