ভোজ্য তেল আমাদের দৈনন্দিন জীবনের একটি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ। ভোজ্য তেল কেবল আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য অপরিহার্য নয়, এটি আমাদের জীবনেও অনেক ইতিবাচক পরিবর্তন আনতে পারে। ধর্মীয় বিশ্বাস অনুসারে, যে তেল গ্রহ নক্ষত্রকে উন্নত করতে সহায়তা করে। আমরা আপনাকে কিছু তেল প্রতিকার বলছি যা আপনার জীবনকে সুখ এবং সমৃদ্ধিতে ভরিয়ে তুলতে পারে। জ্যোতিষশাস্ত্র মতে, এমনটাই মনে করা হয় যে তেলের নানান ব্যবহারের ফলে বিভিন্ন সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

বট গাছের নীচে তিলের তেলের একটি প্রদীপ ৪১ দিনের জন্য পোড়ানো অত্যন্ত শুভরূপে বিবেচিত হয়। জ্যোতিষশাস্ত্র মতে বা এটি বিশ্বাস করা হয় যে এই নিয়ম পালন করার ফলে একজনের অসহনীয় রোগ থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব। এছাড়া প্রতি মঙ্গলবার ও শনিবার ভগবান হনুমানের দেহে তেল লাগিয়ে বা তেল অর্পণ করলে বজরঙ্গবলী সন্তুষ্ট হন। হনুমান-এর কৃপায় প্রতিটি ইচ্ছা আপনার পূরণ হবে।

যদি আপনার কোনও শারীরিক সমস্যা থেকে থাকে তবে আপনার প্রতি শনিবার সরিষা শষ্য বা তেল শারীরিক ভাবে বিশেষ সক্ষম ও দুঃস্থদের মধ্যে দান করা উচিত। এই নিয়ম পালনের ফলে শারীরিক ঝামেলা থেকে মুক্তি মেলে। শনির কু নজর যদি কোনও রাশির জাতক জাতিকার উপর থাকে তবে শনিবার সরিষার তেলে এর উপর নিজের প্রতিচ্ছবি দেখা উচিত। এর পরে শনি মন্দিরে ওই তেল দান করে দিন। অথবা আপনি যে কোনও দুঃস্থকেও এই তেল দান করতে পারেন। যে কোনও জটিল সমস্যা থেকে সহজেই মুক্তি পাবেন।