আপনার সংক্ষিপ্ত পরিচয় লিপিবদ্ধ রয়েছে এই ভিজিটিং কার্ডে। তাই অফিস হোক বা ব্যবসা কোনও অপরিচিত ব্যক্তির উপর প্রথমিকভাবে প্রভাব ফেলে আপনার এই সংক্ষিপ্ত পরিচয়ের বাহক। তাই বাস্তুতন্ত্রের মতে আপনার ভিজিটিং কার্ডটি এমন হওয়া প্রয়োজন যা আপনার কাজের পরিচয় সম্পর্কে অজ্ঞাত ব্যক্তি উপর চিরস্থায়ী  প্রভাব সৃষ্টি করতে সক্ষম হয়। তাই ভিজিটিং কার্ডটি ঠিক কেমন হওয়া প্রয়োজন তার সম্পর্কে জানাচ্ছে বাস্তুতন্ত্র।
ভিজিটিং কার্ড তৈরির আগেই কার্ডের মাপ, ডিজাইন ও রঙের প্রয়োগ ইত্যাদি সম্পর্কে সচেতন হতে হবে। এই গুলোর মাধ্যমেই ভিজিটিং কার্ডটি হয়ে উঠবে আকর্ষণীয়।
বাস্তুমতে ভিজিটিং কার্ড কখনই বিষম কোণযুক্ত হওয়া উচিত নয়। কার্ডের প্রতিটি কোণ ৯০ ডিগ্রী মাপের হওয়া প্রয়োজন।
যে কোনও ধরনের যোগাযোগের জন্য ব্যবহৃত তথ্য এবং মোবাইল নম্বরে অবশ্যই লাল অথবা ধূসর রং ব্যবহার করা উচিৎ এবং লেখার জন্য কার্ডের উপরের ডানদিকের কোনটি ব্যবহার করুন।
কার্ডের একদম মাঝামাঝি জায়গাটি ফাঁকা রাখার চেষ্টা করুন।
কার্ডে নিজের নাম লেখার জন্য গাঢ় নীল, কালো অথবা গাঢ় সবুজ রং ব্যবহার করা প্রয়োজন।
একটি সুন্দর ভিজিটিং কার্ডের মাধ্যমে যে শুধুই কর্মসূত্রের সম্পর্কের বিস্তার হবে তাই নয়, সেই সঙ্গে সম্পর্ক আরও দৃঢ় ও উজ্জ্বল হয়ে উঠবে।