আমাদের প্রত্যেকের জীবনে কিছু না কিছু সমস্যা রয়েছে। জীবনের এই সমস্যাগুলোকে সহজেই কাটিয়ে ওঠার জন্য জ্যোতিষীরা নানান রত্ন ধারণের পরামর্শ দেন। তবে রত্ন ধারণে সমস্যা কাটিয়ে ওঠা গেলেও অনেকের পক্ষেই সব সময় রত্ন ধারণ সম্ভব হয় না। জ্যোতিষশাস্ত্র মতে সঠিক নিয়মে গ্রহ-নক্ষত্র অনুযায়ী রত্ন ধারণ করলে ফিরতে পারে আপনার ভাগ্যও৷ একই সঙ্গে গ্রহ প্রতিকারের জন্য প্রয়োজন প্রচুর পরিমান অর্থের, যা সকলের পক্ষে ব্যবস্থা করা সম্ভব হয়ে ওঠে না। 

বর্তমান পরিস্থিতিতে চাকরি, ব্যবসা, অন্ন, সংস্থান যাবতীয় মানসিক চাপের সঙ্গে মানিয়ে চলতে হচ্ছে। তবে এমন কিছু রাশি রয়েছে যারা সহজেই যে কোনও পরিস্থিতিতে মানিয়ে বা চাপ কাটিয়ে উঠতে পারেন। জেনে নেওয়া যাক মানসিক চাপের সঙ্গে সহজেই মোকাবিলা করতে সক্ষম রাশিগুলি কি কি-

কর্কট রাশি- এই রাশি খুব আত্মকেন্দ্রীক তবে স্পর্শকাতর। এরা বাবা মায়ের অত্যন্ত প্রিয়। এরা অত্যন্ত খুঁতখুঁতে এবং ভীতু প্রকৃতির হয়। তবে এরা জীবনে অনেক ভালো সুযোগ নষ্ট করে দেয়। এদের স্মৃতিশক্তি খুব প্রখর, এরা সহজে কোনও কিছু ভোলে না। আত্মরক্ষামূলক হন এবং নিজেকে বাঁচাতে তারা তাদের শেষ চেষ্টাটুকু করে। 

সিংহ রাশি-  এরা সাধারণত শান্ত প্রকৃতির হয়ে থাকে। তবে এরা অত্যন্ত জেদী এবং রেগে গেলে হিতাহিত জ্ঞানশূণ্য হয়ে পড়ে। যে কোনও কাজে এরা ঘন ঘন মত বদলাতে উন্নতির পথে তা বাধা হয়ে দাঁড়াবে। এরা সম্পূর্ণ নিজের চেষ্টায় জীবনে উন্নতি করে। এরা মানসিক ভাবে চাপে থাকলেও সময়ের উপর সব কিছু ছেড়ে দেয়। দেওয়ালে পিঠ ঠেকে না যাওয়া অবধি ঘুড়ে দাঁড়ানোর জন্য চিন্তা ভাবনা থাকেনা কোনও। তবে এরা যে ভাবেই হোক পরিস্থিতি সামলে ঠিকে ঘুড়ে দাঁড়ায়।

কন্যা রাশি- এই রাশির জাতক-জাতিকারা খুব কর্তব্যপরায়ণ হয়ে থাকে। এরা একা থাকতে পছন্দ করেন না। এদের প্রচুর বন্ধু হয়ে থাকে। এই রাশির জাতক-জাতিকাদের স্বভাব চরিত্র বোঝা যায় না। এরা সকলের জন্য চিন্তা করেন। তারা মনে করে যে আশেপাশের প্রত্যেকের দায়িত্ব গ্রহণ করা উচিত। এদের এই মানসিকতা এদের এই মানসিক চাপের সঙ্গে মোকাবিলা করতে সাহায্য করে।

মীন রাশি- এই রাশির জাতক-জাতিকারা উদার পরোপকারী ও সৎ প্রকৃতির। এদের মানসিক অস্থিরতা মাঝে মাঝেই এদের লক্ষ্যের পথে অন্তরায় হয়ে দাঁড়ায়। এরা অন্যায়ের সঙ্গে একেবারেই আপোস করতে পারে না। প্রতিবাদ করতে গিয়ে বহুবার বিপদে পড়েছে। এদের জীবনের প্রধাণ লক্ষ্য প্রচুর অর্থ উপার্জন করা। মীনরা তাদের ব্যক্তিগত বিষয়গুলি নিয়ে আলোচনা করা পছন্দ করেন না। এদের যে কোনও কাজের প্রতি একাগ্রতা এদের মানসিক চাপের সঙ্গে মোকাবিলা করতে সাহায্য করে।