শিশু ও মহিলা সহ ৩২ জনকে গ্রেফতার করল বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ। ভারত থেকে সীমান্ত পেরিয়ে এরা বাংলাদেশে ঢোকার চেষ্টা করছিল বলে ঢাকার একটি সংবাদপত্রে দাবি করা হয়েছে। ধৃতরা সকলেই নিজেদেরকে বাংলাদেশি নাগরিক বলে দাবি করেছেন, যদিও তাঁদের কাছে নিজেদের দাবির স্বপক্ষে কোনও সরকারি প্রমাণপত্র পাওয়া যায়নি বলে জানা যাচ্ছে।

আরও পড়ুন: এনআরসি-র আগেই 'হয়রানি', পশ্চিমবঙ্গ হয়ে বাংলাদেশে পালাতে গিয়ে আটক অন্তত ২০০

গত ২২ নভেম্বর বাংলাদেশের সংবাদপত্র 'ডেইলি স্টার'-এ একটি খবর প্রকাশিত হয়, যেখানে দাবি করা হয় গত তিন সপ্তাহে ভারত থেকে অবৈধ ভাবে সীমান্ত পেরিয়ে যাওয়ার সময় ৩২৯ জনকে গ্রেফতার করেছে বিজিবি। যারা সকলেই নিজেদেরকে বাংলাদেশের নাগরিক বলেই দাবি করছেন। ধৃতদের মধ্যে অধিকাংশই কর্ণাটকের রাজধানী বেঙ্গালুরু থেকে এসেছেন, কয়েকজন অসম থেকে বাংলাদেশ যাওয়ার চেষ্টা করছিলেন। 
 
২২ নভেম্বর প্রকাশিত রিপোর্টে ৩২৯ জন মানুষই নিজেদেরকে বাংলাদেশি বলে দাবি করেন। যদিও নিজেদের দাবির স্বপক্ষে কোনও নথি তাঁরা দেখাতে পারেননি। ভারতে হয়রানির ভয়েই ফের তাঁরা বাংলাদেশে ফিরছেন বলে দাবি করা হয়। 

এরপরেই গত রবিবার বিজিবি আরও ৩২ জনকে গ্রেফতারের কথা জানায়। ধৃতদের মধ্যে ১৭ জন পুরুষ, ১৩ জন মহিলা এবং ২জন নাবালক। বেনাপোল এলাকায় যশোরের দৌলতপুর সীমান্ত দিয়ে তাঁরা বাংলাদেশে প্রবেশের চেষ্টা চালাচ্ছিলেন। ধৃতরা নিজেদেরকে বাংলাদেশের বাগেরহাট ও মুন্সিগঞ্জ এলাকার বাসিন্দা বলে দাবি করেছেন। বেঙ্গালুরুতে এঁরা সকলেই পরিচারকের কাজ করতেন। বেঙ্গালুরু পুলিশ তাঁদের গ্রেফতার করে বিএসএফের হাতে তুলে দেয়। রাতের অন্ধকারে বিএসএফ তাঁদের সীমান্ত পার করার চেষ্টা করছিল বলে দাবি করছেন এই মানুষগুলি।