বাংলাদেশের ব্রাহ্মণবেড়িয়া কসবা উপজেলায় মঙ্গলবার ভোররাতে দুইটি ট্রেনের মধ্যে সংঘর্ষে  ১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে।  ৫০ জনের বেশি আহত হয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। আতদের যত দ্রুত সম্ভব হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।  মঙ্গলবার ভোর পৌনে ৩টার দিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম রেলপথের মন্দবাগ রেলওয়ে স্টেশনেের ক্রসিংয়ের আন্তঃনগর উদয়ম এক্সপ্রেসের ও আন্তঃনগর তৃর্ণা নিশিথার মধ্যে সংঘর্ষ হয়। 


ব্রাহ্মণবেড়িয়ার জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ- দৌলা খান বলেন, দুর্ঘটনাস্থলেই ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। গুরতর আহতদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে আরও ছয় জনের মৃত্যু হয়েছে। আহত যাত্রীদের কসবা, ব্রাহ্মণবেড়িয়া ও কুমিল্লার বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। দুর্ঘটমার পর থেকে চট্টগ্রামের সঙ্গে সিলেট ও ঢাকার রেল যোগাযোগ ব্যবস্থা সাময়িকভাবে বন্ধ রাখা হয়েছে। সিলেট থেকে ছেড়ে উদয়ন এক্লপ্রেস ঢাকায় যাচ্ছিল।  অন্য দিকে তূর্ণা নিশিথা এক্সপ্রেস চট্টগ্রাম থেকে ঢাকায় যাচ্ছিল বলে জানা গিয়েছে। 


ব্রাহ্মণবেড়িয়ার জেলা প্রশাসক জানিয়েছেন, প্রাথমিক তদন্তে অনুমান করা হচ্ছে তূর্ণা নিশীথা চালকের অবহেলার জেরে এই দুর্ঘটনা ঘটেছে।  প্রত্যক্ষদর্শী এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, মন্দাবাগে দুইটি ট্রেন পার হচ্ছিল। সিগন্যাল পেয়ে উদয়ন মেইন লাইন থেকে কড লাইনে প্রবেশ করছিল। ট্রেনের নয়টি বগি লুপ লাইনে চলে যাওয়ার পর দশম বগিতে তূর্ণা নিশীথা এক্সপ্রেস ধাক্কা মারে। ওই ট্রেনের লোকোমাস্টার সিগন্যাল অমান্য করায় এই ঘটনা ঘটেছে।