৩০ তারিখ সরস্বতী পুজো। অথচ, সেই দিনেই  ঢাকার দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন (ডিএসসিসি) ও ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি)-এর নির্বাচন, বলে ঘোষণা করা হয়েছে। আর এই নিয়েই আপাতত উত্তাল ঢাকা। স্বাভাবিকভাবেই হিন্দুরা তাঁদের এই উৎসবের দিনে নির্বাচন করতে রাজি নন। নির্বাচন পিছনোর দাবিতেই বৃহস্পতিবার থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বেশ কিছু হিন্দু ছাত্র আমরণ অনশনে বসে। তাঁদের মধ্যেই এদিন অসুস্থ হয়ে পড়েছেন চারজন।

বৃহস্পতিবার বেলা ২টো নাগাদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হল ইউনিয়ন, হল শাখা ছাত্রলিগ- এই দুই ছাত্রসংগঠনের প্রায় ৪০ জন সদস্য কর্পোরেশন ভোটের তারিখ পিছিয়ে দেওয়ার দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের সামনে প্ল্যাকার্ড-ব্যানার হাতে অনশনে বসেন। এদিন দ্বিতীয় দিনে পড়ে তাঁদের অনশন। এদিন ক্যাম্পাসে অনশনের সময় চারজন ছাত্র অসুস্থ হয়ে পড়েন বলে জানা গিয়েছে। এঁরা হলেন - অপূর্ব চক্রবর্তী, অর্ক সাহা, কাজল দাস ও প্রদীপ দাস। অপূর্ব ও অর্ককে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়েছে। বাকি দুজনকে ক্যাম্পাসেই স্যালাইন দেওয়া হচ্ছে।

গত  ২২ ডিসেম্বর বাংলাদেশের নির্বাচন কমিশন এই নির্বাচনের কথা ঘোষণা করেছিল। তারপর থেকেই নির্বাচনের দিন পিছিয়ে দেওয়ার দাবি উঠছে। হিন্দুদের পাসাপাশি মুসলিম সমম্প্রদায়ের একটি বড় অংশও উৎসবের দিনে নির্বাচন করার বিপক্ষে। এই নিয়ে গত ৬ জানুয়ারি হাইকোর্টে মামলা করার আবেদন করেছিলেন বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অশোক কুমার ঘোষ। কিন্তু গত ১৪ জানুয়ারি হাইকোর্ট সেই আবেদন সরাসরি খারিজ করে দেয়। বৃহস্পতিবার ফের আদালতের সেই রায়কে চ্যালেঞ্জ করা হয়েছে।