সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পর থেকেই নেপোটিজম মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে।  বলিউডের কিছু উজ্জ্বল ব্যক্তিত্বদের কারণেই মানসিক অবসাদের শিকার হয়েছিলেন অভিনেতা। এবং এই স্বজনপোষণ নীতি তার মৃত্যুর পিছনে দায়ী বলে মনে করছেন একাংশ। অভিনেতার মৃত্যুর পর থেকে নানা প্রশ্নে বিদ্ধ হয়েছে টিনসেল টাউন। প্রভাবশালীদের উপর একের পর এক ওঠা অভিযোগের ভিত্তিতেই তদন্ত শুরু করেছে মুম্বই পুলিশ। অভিনেতার মৃত্যুর তিনদিনের মাথাতেই বিহারের মুজফফরপুর আদালাতে সলমন, করণ, একতা, বনশালি, যশরাজ ফিল্মসের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছিল। প্রত্যেককেই  পুলিশি জেরা করা হবে বলে জানানো হয়েছে। কয়েকদিন আগে বনশালিকে জেরা করা হয়েছিল, যা নিয়ে উত্তাল হয়েছিল সোশ্যাল মিডিয়া।

আরও পড়ুন-ওয়াহিদার সঙ্গে বিচ্ছেদের কারণেই কি আত্মহননের পথ বেছে ছিলেন গুরু দত্ত, রহস্য মৃত্যু আজও ধোঁয়াশা...

সুশান্ত সিং রাজপুতের আত্মহত্যার প্রায় একমাস হতে চলেছে। কিন্তু যত সময় এগোচ্ছে ততই যেন রহস্য জট ক্রমশ গাঢ় হচ্ছে। একাধিক মানুষকে জিজ্ঞাসাবাদ ও বয়ান রেকর্ডও করেছে মুম্বই পুলিশ। সঞ্জয় লীলা বনশালির পর এবার পুলিশি জেরার মুখে পরিচালক শেখর কাপুরের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে মুম্বই পুলিশ।  যদিও শেখর কাপুর এখন মুম্বইতে নেই,  তাই পুলিশের প্রশ্নের জবাব তিনি ই-মেল মারফতই দিয়েছেন। সুশান্তের মৃ্ত্যুর পর তিনি একটি টুইট করে শোকপ্রকাশও করেছিলেন। দেখে নিন টুইটটি।

 

যশরাজ ফিল্মসের ব্যানারে শেখর কাপুর পরিচালিত ছবি 'পানি'-তে সুশান্তের অভিনয় করার কথা ছিল। কিন্তু কোনও একটা কারণ বশত তা আর হয়নি। কিন্তু কেন, এর পিছনেও কি অন্য কোনও রহস্য লুকিয়ে রয়েছে, নাকি স্বজনপোষণের কারণে ছবি থেকে বাদ পড়তে হয়েছিল সুশান্তকে। একাধিক বিষয় খতিয়ে দেখছে বান্দ্রা পুলিশ। এখনও পর্যন্ত ৩২ জনেরও বেশি পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদের মুখোমুখি হয়েছেন। সকলেই তার মৃত্যু নিয়ে সরব হয়েছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। এমনকী সিবিআই তদন্তেরও দাবি করেছেন। সুশান্তের মৃত্যুর সিবিআই তদন্ত নিয়ে  দাবি করেছিলেন অভিনেত্রী রূপা গঙ্গোপাধ্যায়, শেখর সুমন, কঙ্গনা রানাউত, পায়েল রোহাতগি, মনোজ তিওয়ারি সহ আরও অনেকে। সত্যিই কি মানসিক চাপ থেকেই  আত্মহত্যা নাকি পরিকল্পনা মাফিক খুন? এই নিয়ে সকলের মনে দানা বেঁধেছে  হাজারো রহস্য।