দীর্ঘ প্রতীক্ষিত ছবি 'গাঙ্গুবাঈ কাথিয়াওয়াড়ি' নিয়ে দর্শকদের মধ্যে উন্মাদনার শেষ নেই। পরিচালক সঞ্জয় লীলা বনশালির এই ছবির শুটিং লকডাউনে দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর নিউ নর্মাল শুরু হতেই ফের শুটিং করেছিলেন পরিচালক। কিন্তু শুটিং শুরু হতে না হতেই ফের বিপত্তি। আইনি বিপাকে জড়িয়ে মামলা দায়ের হল সঞ্জয় লীলা বনশালি ও আলিয়া ভাটের বিরুদ্ধে। কিন্তু কেন? 'গাঙ্গুবাঈ কাথিয়াওয়াড়ি'র জীবনকাহিনি ভুলভাবে তুলে ধরার জন্যই তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। 

 'পদ্মাবত '-এর পর এবার কাঠগড়ায়  'গাঙ্গুবাঈ কাথিয়াওয়াড়ি'। এবার খোদ বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে গাঙ্গুবাঈয়ের পরিবার। ছবির শুটিংও এখনও অনেক বারি। তার মধ্যেই এই আইনি জটে পরেছেন ছবির পরিচালক-অভিনেত্রী। গাঙ্গুবাঈ পরিবাররে দাবি সঞ্জয় লীলা বনশালি নাকি এই সিনেমায় তার জীবনকাহিনিকে ভ্রান্ত করে দেখানোর চেষ্টা করেছে। এবং সেই কারণেই বম্বের সিভিল কোর্টে মামলা দায়ের করেছেন গাঙ্গুবাঈয়ের পরিবার। তবে শুধু বনশালিই নয়, লেখক হোসেন জায়দির বিরুদ্ধেও মামলা দায়ের করা হয়েছে। সূত্রের খবর আগামী ৭ জানুয়ারি কোর্টে হাজিরা দিতে হবে তাদের।

মামলা দায়েরের পর ছবি নিমার্তাদের পক্ষ থেকে কোনওরকম মন্তব্য জানা যায়নি। ছবির মুখ্য চরিত্র আলিয়া ভাট 'গাঙ্গুবাঈ'-এর জন্য নিজেকে যেন অন্যভাবে সাজিয়েছেন। পুরোনো ছক ভেঙে নতুন করে নিজেকে গড়ে তুলেছেন  আলিয়াও। কপালে বড় লাল টিপ, চোখে মোটা কাজল পরে পুরো অন্য বেশে ধরা দিয়েছেন তিনি। তার চোখে মুখে এক বিদ্রোহী নারীর ছাপ ফুটে উঠেছে। ছবির গল্পে দেখা যাবে কীভাবে একজন মেয়ে ধীরে ধীরে বিদ্রোহী হয়ে ওঠে। আর সেই গল্পই ফুটে উঠবে বড়পর্দায়। উল্লেখ্য, 'গাঙ্গুবাঈ'কে মুম্বইয়ের মাফিয়া ক্যুইনও বলা হয়। এর আগে লকডাউনে বিরাট ক্ষতির মুখে পড়েছিলেন বনশালি। সেই ক্ষতি থেকে ঘুরে দাঁড়াতে না দাঁড়াতেই ফের আইনি বিপাকে জড়ালেন সঞ্জয় লীলা বনশালি।