জেএনইউ নিয়ে একের পর এক খবর ঘটনা ক্রমশ প্রকাশ্যে আসছে। আরও একটি খারাপ ঘটনার সাক্ষী থাকল দিল্লির জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয় ক্যম্পাস। ফের রক্তক্ষয়ী হামলার সাক্ষী থাকল গোটা দেশ। হস্টেলর ফি বৃদ্ধির প্রতিবাদে সরব হয়েছিল সমস্ত পড়ুয়ারা। কিন্তু তার কোন সমাধানের বদলে পরিস্থিতি যেন পুরোপুরি বদলে যায়। গতকাল রাতেই এক দুস্কৃতীর দল ক্যাম্পাসে ঢুকে হামলা চালায়।  আর সেই হামলায় আহত হয় পড়ুয়ারা। মুখ ঢেকে মুখোশধারীরা তান্ডবে রীতিমতো নাজেহাল পড়ুয়ারা। এবার জেএনইউ-এর প্রতিবাদে মুখ খুললেন সেলেবরা। ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন বিশিষ্ট ব্যক্তিত্বরা।

আরও পড়ুন-'এই মুখোশধারী গুন্ডারা কারা'- জেনএনইউ প্রতিবাদে সরব টলিউড...

হামলাকারীদের তান্ডবে ছাত্র ইউনিয়নের সভানেত্রী ঐশী ঘোষের মাথা ফেটেছে। গুরুতর আহত হয়েছেন অধ্যাপিকা সুচরিতা সেনও।  এছাড়াও আহত হয়েছেন  আরও  অনেক ছাত্র-ছাত্রী। দুষ্কৃতিরা সকলেই অখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদের আশ্রিত বলে জানা গিয়েছে। আরও জানা গিয়েছে, এই ঘটনার পরেও নীরব দর্শকের ভূমিকা পালন করেছে দিল্লি পুলিশ। আর এই ঘটনার কথা প্রকাশ্যে আসতেই কঠোর সমালোচনা শুরু হয়েছে।

নিজের ট্যুইটারে সরব হয়েছেন অভিনেত্রী স্বরা ভাস্কর। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে জমায়েত হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। দিল্লি পুলিশের নীরবতা এবং এবিভিপি-র এই তান্ডবের পরেই তিনি জনসমাবেশের ডাক দিয়েছেন।

 

ঘটনার তীব্র নিন্দা করে তাপসী পান্নু জানিয়েছেন, 

 

নেহা ধুপিয়াও সরব হয়েছেন জেএনইউ এর প্রতিবাদে, তিনি বলেছেন, 'এই পাগলামির শেষ কোথায়? জীবনের দাম ওরা কবে দিতে শিখবে?এই পাগলা আর গুন্ডামি আর সহ্য করা যাচ্ছে না।'

 

বর্ষীয়ান অভিনেত্রী শাবানা আজমিও জেএনইউ হামলার তীব্র নিন্দা করেছেন। এই ঘটনায় রীতিমতো হতবাক বলে জানিয়েছেন অভিনেত্রী। দোষীদের যত তাড়াতাড়ি সম্ভব শাস্তির দাবিও তুলেছেন অভিনেত্রী।

 

শুধু বলিউড নয়, গোটা দেশ জুড়ে ঘটনার প্রতিবাদে তীব্রভাবে সরব হয়েছেন। অভিনেতা থেকে পরিচালক, গায়ক, মন্ত্রী, ক্রিকেটার সকলে মিলে একসঙ্গে বিক্ষোভের সুরে সুর মিলিয়েছেন এই প্রতিবাদের মিছিলে।