বলিউড কুইন কঙ্গনা রানাওয়াত এবং তাঁর বোন রঙ্গোলি চান্ডেলের বিরুদ্ধে সোশ্য়াল মিডিয়া পোস্ট এবং সাক্ষাৎকারের মাধ্যমে সাম্প্রদায়িক বিভাজনের চেষ্টার অভিযোগে আগেই এফআইআর-র নির্দেশ দিয়েছিল আদালত। আর এবার সেই মামলার সূত্র ধরে কঙ্গনা এবং তাঁর বোন রঙ্গোলিকে তলব করল মুম্বই পুলিশ।

 

 

'আমার ধারণা অভিযুক্তরা অপরাধ করেছেন'


সূত্রের খবর, ২৬ অক্টোবর এবং ২৭ অক্টোবার কঙ্গনা রানাওয়াত এবং তাঁর বোন রঙ্গোলি চান্ডেলকে বান্দ্রা পুলিশ স্টেশনে ডেকে পাঠিয়েছে পুলিশ। ফলে এতদিন অবধি সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রতিবাদের ঝড় তুলে শেষ অবধি সমস্যার মুখে পড়লেন। এদিকে ভাই-এর বিয়ের সেলিবেশ্রন -উৎসবের আমেজ, আর তাঁর মাঝেই ঘটল অঘটন। মেট্রোপলিটন ম্য়াজিস্ট্রেট জয় দে-ও লিখেছেন,  'এই সংক্রান্ত অভিযোগ এবং সংশ্লিষ্ট নথিপত্র প্রাথমিকভাবে খতিয়ে দেখার পর আমার ধারণা অভিযুক্তরা অপরাধ করেছেন। তবে এর জন্য বিশেষজ্ঞদের তদন্তের প্রয়োজন। দরকার মতো তল্লাশি চালানো এবং জিনিসপত্র বাজেয়াপ্ত করাও দরকার।'

 

 

কঙ্গনার বিরুদ্ধে ধর্ম নিয়ে বিভেদ ছড়ানোর অভিযোগ

প্রসঙ্গত, বান্দ্রা মেট্রোপলিটন আদালত এক ব্যক্তি কঙ্গনার সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট নিয়ে হাজির হন। সেখানেই ধর্ম  ও সাম্প্রদায়িক বিদ্বেষকে উসকে দেওয়া পোস্ট সকলের নজরে আসে। কঙ্গনা রানাওয়াত বরাবরই তাঁর বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে সর্বত্র বারবার সমালোচনার শিকার হন।  এবার তা আরও একধাপ পেরিয়ে গেল। সুশান্তের মৃত্যুর পর থেকেই তিনি নেট দুনিয়ায় ভাইরাল। তাঁর লেখা একের পর এক পোস্ট ঘিরে উঠছে সমালোচনার ঝড়। এবার কঙ্গনার বিরুদ্ধে ধর্ম নিয়ে বিভেদ ছড়ানোর অভিযোগ এল সামনে। বিষয়টি বিস্তারিতভাবে ক্ষতিয়ে দেখে এবার আফআইআর দায়ের করার নির্দেশ দেওয় হল বান্দ্রা মেট্রোপলিটন আদালতের পক্ষ থেকে। ধারা ২৯৫, ১৫৩ এ ও আইপিসির ১২৪ এ (রাষ্ট্রদ্রোহিতা) অভিযোগ লিপিবদ্ধ করা হয়েছে। এরইসঙ্গে নাম জড়িয়েছে তাঁর দিদি রঙ্গোলী চান্দেলেরও। মেট্রোপলিটন ম‍্যাজিস্ট্রেট জয়দেব খুলে তাঁর আদেশে জানিয়েছেন, বিষয়টি যেন ক্ষতিয়ে দেখা হয়।