১৫ই অগাস্টই প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছে বাটলা হাউস ও মিশন মঙ্গল। প্রথম দিনের সংগ্রহেই দুই ছবি নজির গড়ল। বেশ কয়েক মাস ধরেই এই দুই ছবির অপেক্ষায় ছিলেন দর্শকেরা। আর তা মুক্তি পাওয়ার দুদিনের মাথায়ই সোশ্যাল মিডিয়াতে ভাইরাল হয়ে গেল। ছবির বক্স অফিসের সাফল্যের দিকে নজর দিয়েই ছবি মুক্তি নয়ে মাথার ঘাম পায়ে ফেলেন পরিচালক থেকে প্রযোজক সংস্থা। কিন্তু সেই দিকেই এবার বড়সড় খামতির রেশ থেকে গেল।

নতুন ছবি দুদিনের মধ্যেই যদি নেট দুনিয়ায় ফাঁস হয়ে যায় তবে তার দর্শকের সংখ্যা যে কমবে তা বলাই বাহুল্য। একটা নয়, অক্ষয় কুমার ও জন আব্রাহম অভিনীত দুই ছবিই পৌঁচ্ছে গেল সকলের আঙুলের ডগায়। যার ফলে আর্থিক ক্ষতির সম্ভাবনা রইল বিস্তর।দুই ছবিকে ঘিরেই দর্শকদের কৌতুহল ছিল তুঙ্গে। তবে এই খবর প্রকাশ্যে উঠে আসার পরই একপ্রকার মাথায় হাত সিনেমা ব্যবসায়ীদের।

আরও পড়ুনঃ সন্ধে বেলায় রোদ চশমা! ক্যাটরিনা ট্রোলড হলেন সোশ্য়াল মিডিয়ায়

ছবির মুল্যায়ন ভালোই। প্রেক্ষাগৃহে দর্শকও হচ্ছিল বেশ। কিন্তু তার পরিবর্তে যদি দুদিনের মধ্যেই এমন সমস্যায় পড়তে হয় তবে তা নিয়ে দুশ্চিন্তার কারণ আছে বইকি। প্রতিটি প্রেক্ষাগৃহই কড়া নজরদারির মধ্যে রাখা হয়, কোথাও ক্যামেরা কিংবা ফোন দ্বারা ছবির অংশ রেকর্ডিং করাও অপরাধ। কিন্তু বেশ কয়েকটি প্রেক্ষাগৃহে সেই দিকে নজর দেওয়া হয় না সেভাবে। সেখান থেকেই এই ধরনের সমস্যার সৃষ্টি হয়। প্রতিটি ছবি মুক্তির পরই প্রথম যে ক্ষতির আশঙ্কা থাকে তা হল ফাঁস হওয়া। এবার সেই সমস্যার সন্মুখীনই হতে হল অক্ষয় ওজনের ছবিকে।