স্বামী অভিনব কোহলির বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করলেন হিন্দি টেলিভিশন অভিনেত্রী শ্বেতা তিওয়ারি। অভিযোগ, অভিনব মত্ত অবস্থায় শ্বেতার সৎ মেয়ে পলককে মারধর করেছেন। এমনকী পলককে অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজও করেছে বলে অভিযোগ শ্বেতার। মুম্বইয়ের কান্দিভালি থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন শ্বেতা। 

এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন থেকে জানা যাচ্ছে, থানায় রীতিমতো কান্নাকাটি করে অভিযোগ দায়ের করেন শ্বেতা। অভিনব কোহলির সঙ্গে বিয়ে হওয়ার পর থেকেই সমস্যা লেগেই থাকত  বলে জানা যাচ্ছে। এমনকী মেয়ে পলককে অশ্লীল ছবি দেখানোরও অভিযোগ করেছেন শ্বেতা। শ্বেতার মেয়ে পলকও  জানিয়েছেন অশ্লীল ভাষায় কথা বলেন অভিনব। শুধু পলককেই নয়, শ্বেতার উপরেও শারীরিক ও মানসিক অত্যাচার করেন বলে জানিয়েছেন তিনি। 

অভিনবের বিরুদ্ধে বধূ নির্যাতন-সহ বেশ কিছু অভিযোগ  দায়ের করেছে পুলিশ। তবে অভিনব সব অভিযোগই অস্বীকার করেছেন। তিনি জানিয়েছেন, কথা কাটাকাটির সময়ে তিনি শুধু পলককে একবার চড় মারেন। তাঁকে থানায় টানা ৪ ঘণ্টা জেরা করা হয় বলে জানা গিয়েছে। 

প্রসঙ্গত, রাজা চৌধুরীর সঙ্গে বিচ্ছেদের পরে ২০১৩ সালে অভিনবের সঙ্গে বিয়ে হয় শ্বেতার। জানা যায়, রাজা চৌধুরীও এক সময়ে শ্বেতার উপরে নির্যাতন করতেন বলেই সমস্যা শুরু হয়। ২০১৬ সালে অভিনবের সঙ্গে বিয়ের পরে এক পুত্র সন্তানের জন্ম দেন শ্বেতা। ছেলে রেয়াংশের জন্ম হওয়ার পর থেকেই মেয়ে পলককে ঘিরে দুজনের মধ্যে সমস্যা শুরু হয় বলে জানা গিয়েছে।