ইয়েস বস-এর অভিনেতা আদিত্য পাঞ্চলিকে সবাই চেনেন এক ডাকে। বলিউডে অধিকাংশ ছবিতেই তাকে খলনায়কের ভুমিকায় পেয়েছেন দর্শক। এবার বাস্তব জীবনেই তাঁর বিরুদ্ধে সরব হলেন বলিউডের এক নায়িকা ও তাঁর দিদি। এই ঘটনা বছর দশেক আগেই। তারা ভিত্তিতেই এবার আদিত্যকাণ্ডে-এ নয়া মোড়। ইতিমধ্যেই অভিযোগকারিনী ও তাঁর দিদির বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করেছিলেন আদিত্য ও তাঁর স্ত্রী জারিনা ওয়াহাব। এক সাক্ষাৎকারে নায়িকা ও তার দিদি আদিত্যর বিরুদ্ধে অসম্মানজনক মন্তব্য করেছিলেন বলে অভিযোগ। এরই পাল্টা জবাবে মানহানির মামলা করে দিয়েছিলেন অভিনেতা। এপ্রিল মাস থেকে চলা এই ঠাণ্ডা লড়াইয়ে এবার নয়া মোড় আনলেন এ নায়িকা। অপহরণ করে ধর্ষণের অভিযোগ মামলা করে বসলেন আদিত্য পাঞ্চলির বিরুদ্ধে। 

মুম্বইয়ের ভারসোভা থানায় যে এফআইআর দায়ের হয়েছে তাতে আদিত্য পাঞ্চলির বিরুদ্ধে এক নাবালিকে অপহরণ করে বন্দি করে রেখে দিনের পর দিন লাগাতার ধর্ষণের অভিযোগ আনা হয়েছে। এই এফআইআর-এর নম্বর-১৯৮/২০১৯। ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৬, ৩২৮, ৩৮৪, ৩৪১, ৩৪২, ৩২৩ ও ৫০ নং ধারাও লাগু করা হয়েছে। নায়িকার দাবী, বছর দশেক আগে তখন বেশ কয়েকবার তার সঙ্গে অশ্লীল ব্যবহার ও ধর্ষণ করেন এই অভিনেতা। কিন্তু এতদিনে কেন মুখ খোলেননি তিনি তাই নিয়েও প্রশ্ন তুলছে বলিউডের একাংশ।

অন্যদিকে পুলিশের কপালে চিন্তার ভাঁজ। তাদের মতে তারা যথাসাধ্য চেষ্টা করছেন অভিনেত্রীর সঙ্গে সহযোগিতা করার। কিন্তু এত বছর আগেকার ঘটনা প্রমাণ হবে কী ভাবে, তা নিয়ে বর্তমানে জল্পনা তুঙ্গে। এদিকে ইতিমধ্যেই ফাইল হওয়া মানহানি মামলার কেস-এর শুনানি আগামী ২৬ শে জুলাই, তারই মাঝে নতুন অভিযোগে বিপাকে পড়লেন আদিত্য পাঞ্চলি। সূত্রের খবর কঙ্গনা রানওয়াত ও তার দিদিই এই এফআইআর দায়ের করেছেন। যদিও, কঙ্গনা বা তাঁর দিদি এই নিয়ে কোনও প্রতিক্রিয়া দেননি।