এক সময়ে করিনা কপূর ও শাহিদ কপূরের প্রেম ছিল বলিউডের টক অফ দ্য টাউন। অন স্ক্রিন হোক বা অফ স্ক্রিন, দুজনের কেমিস্ট্রিতে মুগ্ধ ছিল ভক্তরা। শাহিদ কপূরের নাম অন্য বহু নায়িকার সঙ্গে জড়ালেও করিনার সঙ্গেই তাঁর জুটি ছিল হিট। 

দুজনে পরস্পরের প্রেমে এতই ডুবে ছিলেন যে সংবাদমাধ্য়মের সামনেও নিজেদের সম্পর্কের কথা কখনও লুকোতে হয়নি তাঁদের। করিনা আমিশ খাবার খেতে ভালবাসতেন। কিন্তু শাহিদের জন্য তিনি নিরামিশাসী হয়ে যান। বিয়ের কথাবার্তা পর্যন্ত এগিয়েছিল দুজনের সম্পর্ক। কিন্তু সেসবই হঠাৎ ভেঙে যায়। 

জব উই মেট ছবির ঠিক আগেই সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসেন দুজনে। আসল কারণ জানা না গেলেও বিটাউনে কাল পাতলে শোনা যেত অমৃতা রাও-এর সঙ্গে শাহিদের ঘনিষ্ঠতা পছন্দ ছিল না করিনার। আবার অনেকে বলতেন করিনার ডমিনেটিং স্বভাবে শাহিদের সম্পর্কে শ্বাস নিতে সমস্যা হতো। আর তাই সম্পর্কে দাঁড়ি টানতে হয়। 

সম্পর্ক ভেঙে গেলেও করিনা কিন্তু শাহিদের মনে জায়গা করেছিলেন আরও বেশ কিছুদিন। ইতিমধ্য়ে করিনার জীবনে আসেন সইফ আলি খান। সম্প্রতি শাহিদের পুরনো একটি ইন্টারভিউ সোশ্য়াল মিডিয়ায় প্রকাশ পায়। সেখানে শাহিদ বলেন সইফের সঙ্গে করিনাকে জড়াতে দেখে তাঁর খারাপ লেগেছিল। 

শাহিদকে বলতে শোনা যায়, আমার কিছু যায় আসেনি, এটা বললে মিথ্যে বলা হবে। আমি তো মানুষ। এসব যখন দেখি বা শুনি খারাপ লাগে। কিনউ এটা মেনে নিতে হবে। ওর সঙ্গে তৈরি হওয়া ভাল স্মৃতি মনে  রাখব আর এগিয়ে যাব। এটাই আমি করছি। ইতিবাচক থাকার চেষ্টা করছি এবং সুখী থাকার চেষ্টা করছি।‌‌

শুধু এই সাক্ষাৎকারেই নয়। অন্যান্য আরও জায়গায় তিনি বলেছিলেন করিনার ব্রেক আপের পরের সময়টা মোটেই সহজ ছিল না তাঁর জন্য। আর এই সময়েই মুক্তি পাচ্ছিল জব উই মেট। 

তবে এখন দুজনেই সুখে শান্তিতে সংসার করছেন। করিনা ও সইফের ছেলে তৈমুর ইতিমধ্যেই সেলেব তকমা পেয়ে গিয়েছেন। অন্যদিকে শাহিদ ও মীরা রাজপুত এখন দুই সন্তানের বাবা-মা।