সুশান্তের মৃত্যুর তদন্তে একের পর এক নয়া মোড় বেরিয়ে আসছে।  সুশান্তের মৃত্যুতে একাধিক অভিযোগের আঙুল উঠেছে প্রেমিকা রিয়ার দিকে। এবার পুরোনো সমস্ত অভিযোগকেও ছাপিয়ে গেছে সুশান্তের দিদির করা অভিযোগ। সুশান্তের  দিদি মিতু সিং রাজপুত জানিয়েছেন, সুশান্তের বাড়ির পরিচারকই প্রথম জানিয়েছিলে যে বেশ কয়েকমাস ধরে সুশান্ত ও রিয়া লিভ-ইনে রয়েছেন। এমনকী ভাই সুশান্তের উপর কালা জাদুও করত রিয়া। সময় যত এগোচ্ছে ততই সুশান্তের মৃত্যু  রহস্য ক্রমশ ঘণীভূত হচ্ছে।

আরও পড়ুন-ঐশ্বর্যকে নিয়ে অশ্লীল মন্তব্যে বিপাকে বলিউডের গ্রিকগড, পরে ভুল বুঝে আফসোস হৃত্বিকের...


সুশান্তের দিদি আরও জানিয়েছেন, সুশান্তের পরিবারের তরফে দায়ের করা এফআইআর থেকে বিহার পুলিশ ইতিমধ্যেই সুশান্ত হত্যার তদন্ত শুরু করে দিয়েছে। অন্যদিকে সুপ্রিম কোর্টে সুশান্ত মামলা খারিজ করে দিলেও তদন্তের স্বার্থে কি এই মামলা খতিয়ে দেখতে শুরু করল এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট। সুশান্তের পরিবারের তরফে দায়ের করা এফআইআর-এর কপি বিহার পুলিশের কাছে চেয়ে পাঠিয়েছে ইডি। তারপর থেকেই জল্পনা আরও গাঢ় হচ্ছে। কীভাবে রাতারাতি ১৫ কোটি টাকা গায়েব হয়ে গেল সুশান্তের অ্যাকাউন্ট থেকে, সেই তদন্তই  কি করবে ইডি। সুশান্তের মৃত্যুর আগেই কোটি কোটি টাকা ঘায়েব করে সরিয়ে নিয়েছিল প্রেমিকা রিয়া চক্রবর্তী। প্রায় ১৫ কোটি টাকা সুশান্তের ব্যাঙ্ক থেকে সরিয়ে নিয়েছিলেন। এমনই বিস্ফোরক অভিযোগ অভিনেতার বাবার।

 

 কোটি কোটি টাকার হিসেব মিলছে না।  কীভাবে রাতারাতি এই টাকা উধাও হয়ে গেল। এবার সেই অভিযোগেরই কি তদন্ত করবে ইডি। বিহার পুলিশের সূত্র থেকে জানা গেছে, আর্থিক লেনদেন সম্পর্কিত যে অভিযোগ উঠেছে তা খতিয়ে দেখারই প্রবল সম্ভাবনা রয়েছে। এছাড়াও বিহার পুলিশ  সূত্রে একাধিক  অভিযোগ উঠে এসেছে প্রাক্তন প্রেমিকা রিয়া চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে,  জেনে নিন কী  কী অভিযোগ রয়েছে, 

  • বিহার পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, সুশান্তের উপর কালা জাদু করত রিয়া চক্রবর্তী।
  • ইচ্ছাকৃতভাবে সুশান্তকে অসুস্থ করার জন্য মানসিক রোগের ওষুধে অতিরিক্ত ওভারডোজ দেওয়া হতো।
  • প্রায় ১৫ কোটি টাকা সুশান্তের ব্যাঙ্ক থেকে হাতিয়ে  নিয়েছিলেন রিয়া।
  • সুশান্ত আগে যেখানে থাকত সেখান থেকে সুশান্তকে প্ল্যান করে বার করেছিল রিয়া। এবং রিয়ার পুরো পরিবারের সঙ্গেই সেখানে থাকত সুশান্ত।
  • সুশান্তকে  এমনও বলা হয় সেখানে ভূত রয়েছে, রীতিমতো দিনের পর দিন ভূতের ভয়ও দেখানো হতো। 
  • তার কথাবার্তা অস্বাভাবিক হচ্ছে বলে চাপ দেওয়া হতো সুশান্তকে।
  • মানসিক রোগে ভুগছে বলে তাকে মনোরোগ বিশেষজ্ঞের কাছে যাওয়ার জন্য চাপ দেওয়া হতো।