সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পর থেকেই একের পর এক তারকা থেকে শুরু করে পরিজন, বন্ধুবান্ধবদের পড়তে হচ্ছে পুলিশি জেরার মুখে। সুশান্তের মৃত্যুর তদন্তের দাবি করে নেট দুনিয়া সরব। কেটে গিয়েছে এক মাস, তবুও অভিনেতার মৃত্যু মেনে নিতে নারাজ সকলেই। সুশান্তের আত্মহত্যার কারণ কি, তা ক্ষতিয়ে দেখতে একের পর এক বয়ান রেকর্ড করে চলেছে মুম্বই পুলিশ। এখনও পর্যন্ত জেরা করা হয়েছে ৩৪ জনকে। 

আরও পড়ুনঃ 'দীর্ঘ দিন ধরে একই কাজ ছেলেরা করে চলেছে. আর আমি বলেই কি তা দোষের', তোপ প্রিয়ঙ্কার

শুক্রবার ডাক পড়েছিল সুশান্তের মনোবিদ কেরসি ছাবরার। সঙ্গে ডাক পেয়েছিলেন সুশান্তের আরও দুই মনোবিদ। মোট ৫ মনোবিদের পরামর্শ নিয়েছিলেন সুশান্ত সিং রাজপুত। জানুযায়ী মাস থেকেই তিনি মানসিক অবসাদে ডুবছিলেন বলে দাবি করেন মনোবিদরা। কেরসি ছাবরা জানান, তাঁর কাছে যখন সুশান্ত আসে তখন তিনি অবসাদে চলে গিয়েছেন। নিজের ঘোরেই থাকতেন বেশিরভগ সময়। 

 

 

এদিন বয়ানে কেরসি ছাবরা জানান, প্রতিটা কাউন্সিলিং এই সঙ্গে আসতেন রিয়া চক্রবর্তী। সুশান্তের পরিস্থিতি ক্রমেই খারাপ হচ্ছিল, তার চিকিৎসাও তরছিলেন তিনি। পুলিশের তরফ থেকে মনোবিদদের থেকে চাওয়া হয় সুশান্তের থাকা সমস্ত তথ্য, যা সুশান্ত তাঁদের দিয়েছিলেন, নোট থেকে শুরু করে ডাইরি, যা সুশান্তের পরিস্থিতি ক্ষতিয়ে দেখার জন্য মনোবিদরা নিয়ে ছিলেন। পাশাপাশি পুলিশকে আরও অনেক তথ্যই এদিন জানান কেরসি ছাবরা, যা পুলিশ প্রকাশ্যে জানাতে নারাজ।