সুশান্তের মৃত্যুর তদন্তে একের পর এক নয়া মোড় বেরিয়ে আসছে।  সুশান্তের মৃত্যুতে একাধিক অভিযোগের আঙুল উঠেছে প্রেমিকা রিয়ার দিকে। সুশান্তের পরিবারের তরফে দায়ের করা এফআইআর থেকে বিহার পুলিশ ইতিমধ্যেই সুশান্ত হত্যার তদন্ত শুরু করে দিয়েছে। সুশান্ত মামলায় রিয়া চক্রবর্তীকে ইতিমধ্যেই জেরা করেছে ইডি।  আজ দ্বিতীয় দফায় হাজিরা দিতে ফের ইডির দফতরে পৌঁছলেন রিয়া চক্রবর্তী। রিয়ার পাশাপাশি অভিনেত্রীর বাবা ও ভাইকেও  দেখা গেল ইডির অফিসে। গত দুদিন আগেই ৯ ঘন্টা জেরা করা হয়েছিল রিয়াকে। কিন্তু রিয়া মন্তব্যে সন্তুষ্ট হয়নি ইডি। সেই কারণেই আজ ফের ইডি-র দফতরে ডাকা হয়েছে অভিনেত্রীকে।

 

শুধুই রিয়াই নয়,তার দুই পরিবারের সদস্যদের ডেকে পাঠানো হয়েছে। রিয়ার ভাই সৌভিক ও বাবা ইন্দ্রজিৎও ফের হাজিরার জন্য উপস্থিত হয়েছেন ইডি-র দফতরে। গত শনিবারই রাতভর জেরা করা হয়েছে সৌভিককে। তার কথাতেই অনেক অসঙ্গতি পেয়েছে বলেই ফের তলব করা হয়েছে ভাই সৌভিককে। রিয়া ও সৌভিকে ইডির মুখোমুখি পড়লেও তার বাবা আগে কখনও জেরার মুখে পড়েননি। এই প্রথমবার তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করবে ইডি। শোনা যাচ্ছে, অভিনেত্রী বাবা ইন্দ্রজিৎ ও রিয়াকে একসঙ্গে বসিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুজট এখনও কাটেনি। এখনও শোক কাটিয়ে উঠতে পারেনি সুশান্তের পরিবার। এতদিন চুপ থাকলেও সুশান্তের পরিবার এবার ফুঁসে উঠেছে। ইতিমধ্যেই রিয়ার বিরুদ্ধে ১৬ দফা বিস্ফোরক অভিযোগ এনেছেন অভিনেতার বাবা। ইতিমধ্যেই তার এফআইআর-এর ভিত্তিতে  বিহার থেকে চারজন সদস্যের তদন্তকারী দল তদন্তের জন্য মুম্বইয়ে এসেছে। এবার তাদের প্রশ্নের মুখেও পড়তে চলেছে রিয়া, এমনকী গ্রেফতারির সম্ভাবনাও রয়েছে। শুধু তাই নয়, সম্প্রতি মুম্বইতে দুটি বিলাসবহুল ফ্ল্যাটও কিনেছেন রিয়া। রিয়ার এই সম্পত্তির  লেনদেনও খতিয়ে দেখছে ইডি। এর পাশাপাশি সিদ্ধার্থক ফ্ল্যাটমেট  ও বন্ধু সিদ্ধার্থ পিটানিও সমন পাঠানো হয়েছে। যদি আগেও শনিবার তাকে হাজিরার জন্য সমন পাঠানো হয়েছিল কিন্তু তিনি উপস্থিত হননি।