একটি বা দুটি নয়। বিশ্বজুড়ে প্রায় ৪০০০ রকমের করোনাভাইরাসের জীবাণু ঘুরে বেড়াচ্ছে। সতর্ক করেছে ব্রিটেন। পাশাপাশি উন্নততর করোনা-টিকা প্রস্তুতের জন্য সক্রয় হয়েছে এই দেশটি। বৃহস্পতিবার সে দেশের মন্ত্রী নাদিম জাহাউ জানিয়েছেন করোনাভআইরাসের বিভিন্ন রূপগুলি মোকাবিলার জন্য আরও কার্যকরী ও সুসংহত টিকা তৈরির প্রয়োজন। আর সেই কারণে ফাইজার, অ্যাস্টোজেনেকার মত টিকা প্রস্তুতকারী সংস্থাগুলির সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে পথ চলার পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। 

উন্নত টিকা তৈরি কথা বলেছেন নাদিম। কিন্তু তিনি পাশাপাশি মনে করিয়ে দিয়েছেন এর অর্থ এই নয় যে বর্তমানে যে টিকাগুলি প্রস্তুত হয়েছে সেগুলি করোনাভাইারস মোকাবিলায় কার্যকরী নয়, তিনি বলেছেন সংক্রমণ মোকাবিলায় বর্তমান টিকাগুলি যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ। ব্রিটেনে করোনা টিকা করণ বিষয়ক মন্ত্রী জানিয়েছেন বারবার পরিব্যাপ্তির কারণে করোনাভাইরাসের ৪০০০ রূপ তৈরি হলেও অধিকাংশই তেমন ভয়ঙ্কর নয়। ব্রিটেন ইতিমধ্যেই করোনাভাইরাসের রূপগুলি বিশ্লেষণের কাজ শুরু করেছে। যাতে মহামারির চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করার জন্য একটি শক্তিশালী প্রতিষেধক পাওয়া যায় তার জন্য পরীক্ষাও শুরু হয়েছে। তিনি আরও বলেন, ব্রিটেনের জিনোম সিকোয়েন্সিং শিল্প যথেষ্ট উন্নতমানের। প্রায় ৫০ শতাংশ জিনোম সিংকোয়েন্সিং শিল্পই ব্রিটেনের। 

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে প্রথম চিনে করোনাভইরাসে আক্রান্তের সন্ধান পাওয়া গিয়েছিল। তার কয়েক মাস পর ভাইরাসটির মিউটেশন বিজ্ঞানীদের পরীক্ষায় ধরা পড়েছিল। বর্তমানে করোনাভাইরাসের চারটি অতি সংক্রামক রূপ নজরে এসেছে বিজ্ঞানীদের। ব্রিটেন, ব্রাজিল, জাপান আর দক্ষিণ আফ্রিকা যাদের উৎপত্তিস্থল বলেই দাবি করেছে বিজ্ঞানীরা।