চিকিৎসার গাফিলতিতে রোগী মৃত্যুর অভিযোগকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়াল গুসকরায়। মৃতের পরিবারের অভিযোগ, মৃত ব্য়ক্তিকে রেফার করে অন্য় জায়গায়  নিয়ে যেতে বলেছেন ডাক্তারবাবু। ঘটনার  পর থেকেই স্বাস্থ্য়কেন্দ্রে পাওয়া যাচ্ছে না অভিযুক্ত চিকিৎসককে। 

পরিবারের অভিযোগ, সোমবার রাত সাড়ে আটটা নাগাদ শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যা সৃষ্টি হয় মৃত রাজনারাায়ণ গড়াইয়ের। দ্রুত তাঁকে গুসকরা প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে  নিয়ে আসা হয়। অভিযোগ, শারীরিক অবনতি দেখেও ভর্তি না রেখে শুধুমাত্র অক্সিজেন দিয়ে ফেরত পাঠানো হয় রোগীকে। এক সময় রোগীর  অবস্থা খারাপের দিকে যেতে দেখে বর্ধমান রেফার করার অনুরোধ করেন পরিবারের সদস্যরা। সেটাও করেননি কর্তব্যরত চিকিৎসক।

মঙ্গলবার সকালে ফের অসুস্থ হলে বর্ধমানে আনার উদ্দেশ্যে বের হন পরিবারের সদস্যরা। কিন্তু শ্বাসকষ্ট বেড়ে যাওয়ায় আবারও রোগীকে সকালে নিয়ে যাওয়া গুসকরা প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে । সেখানে যাওয়ার পর রোগীকে ভর্তি নেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ। এমনকী মারা যাওয়ার রোগীকে রেফার করার অভিযোগ উঠেছে স্বাস্থ্যকেন্দ্রের  বিরুদ্ধে। এরপরই পরিবারের সদস্যরা ক্ষোভে ফেটে পড়েন। বেগতিক দেখে এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যায় নার্স,ডাক্তাররা। বিষয়টি জানাজানি হতেই স্বাাস্থকেন্দ্রে  উপস্থিত হয় পুলিশ। 

জানা গেছে, অন্য় হাসপাতালে রেফার করার সময় বলা হয়। চার ঘণ্টার আগে রোগীকে মৃত বলা যায় না এই যুক্তি দেখায় স্বাস্থ্য়কেন্দ্রের লোকজন। যাতে আরও রেগে যান মৃতের পরিবারের সদস্য়রা। তাঁদের অভিযোগ, এই নিয়ে গত ১৮ দিনের  মধ্য়ে পরিবারের দুই ব্য়ক্তি গুসকরা স্বাস্থ্য়কেন্দ্রে মারা গিয়েছেন। তারা মনে করেন, এই ভাবে রোগীর জীবনে নিয়ে ছিনিমিনি খলেতে পারে না কেউ। তাই অবিলম্বে গুসকরা  প্রাথমিক স্বাস্থ্য়কেন্দ্রের বিরুদ্ধে ব্য়বস্থা নেওয়া হোক। নয়তো চিকিৎসায় গাফলতির জন্য় বার বার এরকম ঘটনার মুখোমুখি  হবেন এলাকাবাসী।