গালভান উপত্যকায় ভারত-চীন উত্তেজনার চরমে উঠলে কেন্দ্রীয় সরকার চিনের ৫৯ টি অ্যাপ নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। যে অ্যাপগুলি নিষিদ্ধ করা হয়েছিল, তার মধ্যে ছিল ভারতের অন্যতম জনপ্রিয় টিকটক অ্যাপ্লিকেশন। এর বাইরে ইউসি ব্রাউজার, ক্যাম স্ক্যানারের মতো অনেক জনপ্রিয় অ্যাপও অন্তর্ভুক্ত ছিল। টিকটক ব্যান হওয়ার ফলে আন্তর্জাতিক বানিজ্যে খানিকটা মুখ থুবড়ে পড়ার মত অবস্থা হয়েছিল চিনের। কারণ শুধুমাত্র  এই অ্যাপ্লিকেশনগুলির শুধু ভারতেই কয়েক মিলিয়ন বা বিলিয়ন ব্যবহারকারী ছিল।

টেক ক্রাঞ্চ নামের একটি ওয়েবসাইটের প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী, জনপ্রিয় ভিডিও অ্যাপ টিকটক-এর মূল সংস্থা বাইটডান্স ভারতীয় বাজারে নিজেদের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখতে এই সংস্থায় ভারতের অন্যমত শিল্পপতি মুকেশ আম্বানির সঙ্গে আলোচানা করেছেন। তবে জানা গিয়েছে এই অলোচনা এখনও প্রাথমিক পর্যায়ে রয়েছে। রিলায়েন্স গ্রুপ এখনও বিনিয়োগের সম্ভাবনা বিষয়ে কোনও মন্তব্য প্রকাশ করেনি। 

ভারত তার সার্বভৌমত্ব, সুরক্ষা এবং গোপনীয়তার কথা উল্লেখ করে এই চিনা অ্যাপ নিষেধাজ্ঞার কথা উল্লেখ করেছিল। তবে সম্প্রতি, টিকটকের বিরুদ্ধে ব্যবহারকারীর ডেটা শেয়ার করে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। ভারতে নিষেধাজ্ঞার পরে, বাইটড্যান্সের মালিকানাধীন সংস্থা টিকটক বিশাল পরিমান লোকসানের মুখোমুখি হয়েছেন। তবে বিনিয়োগ সম্পর্কে রিলায়েন্স এবং বাইটড্যান্সের পক্ষ থেকে কোনও সরকারী তথ্য প্রকাশ করা হয়নি। তবে টিকটক শেয়ার এর বিষয়ে প্রতিযোগিতায় মাইক্রোসফ্টের ও টুইটার ও রয়েছে। শেষ পর্যন্ত ভারতে এই ব্যবসা কার হাতে থাকবে তা সময়ের অপেক্ষা।