সুন্দর পিচাই। অনেক দেশবাসীর কাছে অনুপ্রেরণা তিনি। জীবনে তাঁর মতো সাফল্য পাওয়ার স্বপ্ন দেখেন অনেকেই। এই মুহূর্তে গুগলের মূল কোম্পানি অ্যালফাবেটের সিইও হিসেবে নিযুক্ত রয়েছেন তিনি। আর তাঁরই কিনা জন্মদিন বদলে দিল গুগল। যা দেখে অবাক নেটিজেনদের একাংশ। 

১৯৭২ সালের ১০ জুন তামিলনাড়ুতে জন্ম সুন্দর পিচাইয়ের। আইআইটি খড়গপুর থেকে বি-টেক পাশ করেন তিনি। এরপর এমএস ডিগ্রি নিয়ে পাশ করেন স্ট্যান্ডফোর্ড থেকে। এরপর অ্যাপ্লাইড মেটেরিয়াল, ম্যাককিনসে অ্যান্ড কোম্পানিতে সাধারণ এক ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে কাজ শুরু করেন। ২০০৪ সালে ম্যানেজমেন্ট অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট হিসেবে গুগলে যোগ দেন তিনি। সেখানে তিনি প্রথমে মাইক্রোসফট এক্সপ্লোরাল এবং মজিলা ফায়ারফক্সের জন্য গুগল টুলবার এর উপর কাজ করেন। বেশ কিছু বছর পর পিচাই সরাসরি গুগলের নিজস্ব ব্রাউজার ডেভলপমেন্টের কাজে নিযুক্ত হন। তারপর ২০০৮ সালে লঞ্চ করেন ক্রোম। এভাবেই ধীরে ধীরে তাঁর পদোন্নতি হতে শুরু করে। পরবর্তী দুই বছরে গুগল প্রোডাক্টিভ চিফ পদ অর্জন করেন তিনি। এভাবেই একের পর শীর্ষে উঠেছেন সুন্দর। অনুপ্রেরণা হয়ে উঠেছেন অনেকের কাছেই।

যদিও সাফল্যের এই সিঁড়িটা একেবারেই সহজ ছিল না। অনেক বাধার সম্মুখীন হতে হয়েছে তাঁকে। অনেক লড়াই করেছেন তিনি। ২৭ বছর আগে স্ট্যান্ডফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সুযোগ পেয়েছিলেন। কিন্তু, কীভাবে ভারত থেকে আমেরিকায় যাবেন সেটাই বুঝতে পারছিলেন না মধ্যবিত্ত পরিবারের ছেলে পিচাই। গোটা এক বছরের বেতন দিয়ে ছেলের বিমানের টিকিট কেটে দিয়েছিলেন তাঁর বাবা। তখনই জীবনে প্রথমবার বিমানে চড়ার সুযোগ এসেছিল তাঁর কাছে। আর বিমানে ওঠার পর থেকেই মনের মধ্যে আমেরিকা সম্পর্কে একটা ধারণা তৈরি করে নিয়েছিলেন। কিন্তু, ক্যালিফোর্নিয়াতে অবতরণের পর তাঁর সেই ধারণা ভেঙে চুরমার হয়ে গিয়েছিল। শুরু হয়েছিল লড়াই। তবে হার মানেননি। মনের জোর দিয়ে এগিয়ে গিয়েছেন তিনি। পেয়েছেন সাফল্য।

এহেন এক ব্যক্তিত্বকে নিজের কাছের ও প্রিয় মানুষ বলেই মনে করেন অধিকাংশ ভারতবাসী। আর তাই তাঁকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানাতে ভোলেন না অনেকেই। আজও তার অন্যথা হয়নি। সকাল থেকেই শুভেচ্ছাবার্তায় ভরে গিয়েছে সুন্দরের সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট।

কিন্তু, সমস্যা তৈরি হয় গুগলকে নিয়ে। গুগলে দেখা গিয়েছে সুন্দরের জন্মদিন নাকি ১২ জুন। ১০ জুন নয়। আর তাতেই নেটিজেনদের মনে তৈরি হয় দ্বন্দ্ব। তাহলে কি তাঁদের প্রিয় মানুষের জন্মদিন এতদিন তাঁরা ভুল জানতেন? এই নিয়েই নেট দুনিয়ায় শুরু হয় লেখালেখি। গুগলে সার্চ করতে শুরু করেন অনেকেই। তারপরই খুঁজে পাওয়া যায় আসল দোষীকে।

আসলে ব্রিটানিকাতে সুন্দরের জীবনীতে তাঁর জন্মের তারিখ লেখা রয়েছে ১২ জুন। সেই হিসেবে চলতে গিয়েই ভুল হয় গুগলের। ব্রিটানিকাতে ওই আর্টিকেল প্রকাশিত হয়েছিল ২০১৬ সালের ৩ অক্টোবর। কিন্তু, তারপর থেকে তা আর পরিবর্তন করা হয়নি। যার ফলে তারিখ নিয়ে সমস্যা দেখা যায়। পরে অবশ্য নেটিজেনদের চাপে নিজেদের ভুল বুঝতে পেরে অ্যালফাবেটের সিইও-র জন্মের তারিখ পরিবর্তন করে গুগল। এর ফলে এখন গুগলে সার্চ করলে দেখা যাবে সুন্দর পিচাইয়ের জন্ম তারিখ ১৯৭২-এর ১০ জুন।