রাত পোহালেই বাঙালির নববর্ষ উৎসব। কিন্তু করোনার জেরে  বিপর্স্ত হয়েছে গোটা জনজীবন। সারা বিশ্বকে গ্রাস করেছে এই করোনা ভাইরাস। দীর্ঘ ২১ দিনের লকডাউনের কালই শেষ দিন। যদিও শেষ বলা ভুল মহামারী থেকে বাঁচতে বাড়ানো হয়েছে লকডাউনের মেয়াদ। আর নববর্ষের আগের দিন মাথায় হাত পড়েছে মৃৎশিল্পীদের।

আরও পড়ুন-ঘরবন্দি অবস্থায় সুস্থ থাকতে নিয়মিত করুন যোগা, দেখে নিন বিশেষজ্ঞের পরামর্শ...

প্রতিবারের থেকে এবারের চেহারাটা যেন পুরো উল্টো। নববর্ষেও এবার বিক্রি নেই গণেশের।  লকডাউনের জেরে চরম সমস্যার মধ্যে পড়েছে মৃৎশিল্পীরা। এর আগেও লকডাউনের জেরে বাতিল হয়েছে অন্নপূর্ণা ও বাসন্তী পুজো। এবার হল নববর্ষ। প্রতিবছর এই দিনটাতে গণেশ মূর্তির চাহিদা থাকে তুঙ্গে।  সমস্ত ব্যবসায়ী এই নববর্ষের দিনটিতে ব্যবসার হাল ফেরাতে সিদ্ধিদাতার আরাধনায় মেতে ওঠে। এবার সেই ছবিটাই যেন পুরো অন্যরকম।

আরও পড়ুন-লকডাউনে ঘরোয়া ভেষজ টোটকায় সুস্থ থাকুন, পরামর্শ আয়ুষ মন্ত্রকের...

হাজার হাজার প্রতিমা পড়ে রয়েছে মৃৎশিল্পীদের কারখানায়। গণেশ মূর্তিও রয়েছে প্রচুর। কিন্তু করোনা প্রকোপ যেভাবে গ্রাস করেছে তাতে পূজো তো দূরহস্ত নিজেদের সুস্থ রাখতেই মরিয়া হয়ে পড়েছে সকলেই। কুমোরটুলির মৃৎশিল্পী সকলেরই রুটি রোজগার প্রায় বন্ধের পথে।  যে সমস্ত ব্যবসায়ীরা আগে থেকে বায়না দিয়ে রাখে তারাও শেষ মুহূর্তে অর্ডার বাতিল করেছে। বহু মানুষই গণেশ মূর্তি কিনবেন না বলে জানিয়ে দিয়েছেন।  তাই এই বছরে সমস্ত মূর্তিই সাধারণ মানুষের মতো ঘরবন্দি হয়ে পড়ে রয়েছে।