কোলে মৃত শিশু। আর্তনাদের স্বরে লকডাউনের পথে হেঁটে চলেছে মা। আর পেছনের আর এক শিশুকে কোলে করে হাউহাউ করে কাঁদতে কাঁদতে এগিয়ে চলেছে বাবা। সম্প্রতি এমনই এক ভিডিও ভাইরাল হয়েছে নেট দুনিয়ায়। যদিও ভিডিও-টির সত্য়তা যাচাই করা যায়নি। পথচলতি এক মানুষের সঙ্গে কথোপকথন থেকে বোঝা যাচ্ছে, লকডাউনের বাজারে কোথাও অ্য়াম্বুলেন্স পাওয়া যায়নি। তাই অসুস্থ শিশুর চিকিৎসার কোনও সুযোগই পাওয়া যায়নি। সেই কারণে কার্যত পথেই বেঘোরে মরতে হল ওই দুধের শিশুকে। 
ভিডিয়োটি সোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়ার পর থেকেই স্তম্ভিত  হয়ে পড়েছেন নেটিজেনরা। লকডাউনের সময়ে করনার সংক্রমণে মৃ্ত্য়ু এক জিনিস। কিন্তু অ্য়াম্বুলেন্স না-পেয়ে যেভাবে দিগবিদিক শূন্য় হয়ে কোলে মৃত রাস্তা দিয়ে হেঁটে চলেছেন এক মহিলা তাতে করে শিউরে উঠেছেন সবাই। এমন মর্মান্তিক মৃত্য়ুর ভিডিয়োটি খুব সম্ভবত বিহারের বলেই মনে করা হচ্ছে। জানা গিয়েছে, মৃত শিশুটির বয়স মোটে তিনবছর। 


ভিডিয়োটি সোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়ার পরই প্রশ্ন উঠেছে, লকডাউন মানে তো আর জরুরি পরিষেবা বন্ধ করে দেওয়া নয়। তাহলে? যে রাস্তার ওপর দিয়ে প্রাণপণে হেঁটে চলেছে ওই পরিবার, সে রাস্তাও কোনও অচ পাড়াগাঁর নয়। বরং শহর বা মফস্বলের রাস্তা। তাহলে সেখানেও কেন এমন বিপদের সময়ে একটা অ্য়াম্বুলেন্স পাওয়া গেল না?
লকডাউনের সময়ে  দীর্ঘ পথ পাড়ি দেওয়া পরিযায়ী শ্রমিক পরিবারে শিশু মৃত্য়ুর খবর এসেছিল আগে। পথ চলতে-চলতে না-খেয়ে না-দেয়ে বেশ কয়েকজন শিশু অসুস্থ হয়ে মরে গিয়েছিল বলে দাবি করা হয়েছিল। এবার এই ভিডিয়ো সামনে আসতেই প্রশ্ন উঠেছে, জরুরি পরিষেবাগুলো সচল রাখতে না-পারলে লকডাউন কি কখনও সফল হবে?

এনআরএস-র আরও ৪৩ জন স্বাস্থ্য কর্মীর রিপোর্ট নেগেটিভ, স্বস্তিতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ

করোনার রোগী সন্দেহে বৃদ্ধকে বেধড়ক মার, স্যালাইনের চ্যানেল করা হাতে দড়ি পড়ালো মানিকতলাবাসী

করোনায় আক্রান্ত এবার কলকাতার ২ ফুটপাথবাসী, হোম কোয়ারেন্টাইনে উদ্ধারকারীরা