রং খেলার অছিলায় হামলা বিজেপির চুঁচুড়ার প্রার্থী লকেট চট্টোপাধ্যায়ের উপর। শনিবার, প্রথম দফা ভোটগ্রহণের দিনই আক্রান্ত হলেন গেরুয়া শিবিরের এই দাপুটে নেত্রী। তাঁর চোখে বিষাক্ত রং ছুঁড়ে মেরেছে তৃণমূল আশ্রীত দুষ্কৃতীরা, এমনই অভিযোগ লকেটের।

বিজেপি প্রার্থী জানিয়েছেন, শনিবার সন্ধ্যায় টোটোয় করে চুচুড়ার কোদোলিয়া এলাকায় প্রচারে যাচ্ছিলেন তিনি। পথে রবীন্দ্রনগরের কালীতলা মাঠে বসন্ত উৎসব হচ্ছিল। হাতের কাছে প্রাক্তন অভিনেত্রী তথা প্রার্থীকে পেয়ে অনেক কচিকাঁচা  ও মহিলাদের তাঁকে বসন্ত উৎসবে শামিল হওয়ার জন্য অনুরোধ করেছিলেন। রং মাখানোর আবদার এলে করোনা পরিস্থিতির কথা উল্লেখ করে প্রথমে রাজি হননি তিনি। পরে রঙ খেলার পরিবর্তে কপালে একটি আবিরের টিপ পরেন।

এই পর্যন্ত ঘটনা ঠিকই ছিল। পরিস্থিতিটা বিগড়ে যায় এর পরেই। লকেট চট্টোপাধ্যায়ের অভিযোগ হঠাতই সেখানে দু’জন পুরুষ এসে বলেন, 'আজ আপনাকে রং মাখাব, কিছুতেই ছাড়ব না।' এরপরই তারা কিছু গুড়ো গুড়ো পদার্থ তাঁর দিকে ছুঁড়ে ভিড়ে মিশে যায়। চশমার জন্য সেই গুঁড়ো তাঁর চোখে সরাসরি না লাগলেও, চশমার ফাঁক দিয়ে ওই গুঁড়ো কিছুটা চোখে ঢুকে যায় লকেটের। সেই থেকে তাঁর চোখে প্রচণ্ড জ্বালা। সামান্য চোখ মেলে তিনি তৃণমূলের ব্যাজ পরা তিন থেকে চারজন যুবককে দেখেছিলেন বলে দাবি করেছেন লকেট। তারা অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজও করছে বলে অভিযোগ করেছেন তিনি।

প্রচারে আর যেতে পারেননি বিজেপি নেত্রী। কর্মীরা গাড়িতে করে তাঁকে লিচুতলার বাড়িতে পৌঁছে দেয়। কিনতু, এখনও তিনি স্বাভাবিকভাবে চোখ খুলতে পারছেন না বিজেপির চুঁচুড়ার প্রার্থী। থাঁর স্পষ্ট অভিযোগ ওই মহিলা ও শিশুদের ভিড়ের আড়াল থেকে তৃণমূল আশ্রীত গুন্ডারাই তাঁর দিকে এই বিষাক্ত রং ছুঁড়েছে। সাংবাদিকদের সামনে এই ঘটনার কথা বলতে গিয়ে কেঁদে পেলেন লকেট। কোনও মহিলাকে এরকমভাবে আক্রমণ করা যায়, তা তাঁর ভাবনার বাইরে ছিল, বলেছেন তিনি।

তবে, এই অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। চুঁচুড়ার তৃণমূল প্রার্থী অসিত মজুমদারের দাবি, বিরোধী নেতা-নেত্রীদের অসম্মান করাটা তৃণমূলের সংস্কৃতি নয়। লকেট এই আসনে ৫০ হাজারেরও বেশি ভোটে হারবেন। সেটটা বুঝতে পেরেই প্রচারের জন্য তিনি 'নাটক' করছেন।