বাংলার বিধানসভা নির্বাচনে নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে দুর্দান্ত জয়ের পর থেকেই, একেবারে সব বিষয়েই প্রধানমন্ত্রীকে টেক্কা দিচ্ছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার একই ঘটনা দেখা গেল কোভিড-১৯'এর টিকার শংসাপত্রেও। এতদিন, করোনার টিকা নিলেই কোউইন অ্যাপ থেকে যে শংসাপত্র পাওয়া যেত, তাতে থাকত প্রধানমন্ত্রীর ছবি। এবার বাংলায় কোভিড টিকা নিলে মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়ের ছবি দেওয়া শংসাপত্রও মিলবে।

গত জানুয়ারি মাস থেকে ভারতে টিকাকরণ অভিযান শুরু হয়েছিল। প্রথম টিকার ডোজ নিলে একটি প্রভিশনাল সার্টিফিকেট আর দুটি ডোজ নিলে ফাইনাল সার্টিফিকেট পান উপভোক্তারা। ভারত সরকারের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান মন্ত্রকের পক্ষ থেকে দেওয়া সেই সংশাপত্রে উপভোক্তার নাম, কবে তাঁকে কোন টিকা দেওয়া হয়েছে, কে দিয়েছেন টিকা, সেইসব তথ্য থাকে। তার সঙ্গে একেবারে নিচে বাম কোনায় থাকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ছবি। তার ডানদিকে লেখা থাকে, 'দাবাই ভী অর কড়াই ভী।' এবং 'Together India will defeat COVID-19'। নির্বাচনের সময় প্রধানমন্ত্রীর এই ছবি থাকা নিয়ে বিতর্কও হয়েছিল।

তবে এবার, কেন্দ্রের পাঠানো এই শংসাপত্রের সঙ্গেই পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর থেকেও আরেকটি শংসাপত্র দেওয়া হবে বলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সেখানে মোদীর বদলে ছবি থাকবে মমতার। তার সঙ্গে লেখা থাকবে 'সজাগ থাকুন, নিরাপদ থাকুন'। মূলত ১৮ থেকে ৪৪ বছর বয়সীরা টিকা নিলে এই শংসাপত্র পাবেন। কারণ, এই বয়স গোষ্ঠীর জন্য টিকা কিনছে রাজ্যই, কেন্দ্র নয়। ৪৫ ঊর্ধ বয়সীদেরও অনেকেই রাজ্যের কেনা টিকা পাবেন। তাঁরাও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি দেওয়া শংসাপত্রও পাবেন। রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর থেকে উপভোক্তাদের মোবাইলে একটি লিঙ্ক এসএমএস করা হবে। সেই লিঙ্ক থেকেই ডাউনলোড করা যাবে মুখ্যমন্ত্রীর ছবি দেওয়া রাজ্যের শংসাপত্র।

করোনার শংসাপত্রে প্রধানমন্ত্রীর ছবি থাকা নিয়ে অনেকেই উষ্মা প্রকাশ করেছেন। অনেকেরই মত, প্রধানমন্ত্রী বা মুখ্যমন্ত্রীদের ছবি নয়, করোনা টিকার শংসাপত্রে কারোর ছবি যদি দিতেই হয়, তবে দেওয়া হোক সেইসব বিজ্ঞানী-গবেষকদের ছবি, যাঁরা এই টিকাগুলি বিকাশ করেছেন।