করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় তরঙ্গে আক্রান্তের সংখ্যা আচমকাই বেড়ে গিয়েছিল দেশে। চাপ বাড়ছিল ডায়াগনস্টিক সেন্টারগুলিতে। কোভিড রোগীদেরও রিপোর্ট সমস্যা হচ্ছিল। সংকট কাটাতে ইন্ডিয়ার কাউন্সিল অব মেডিক্যাল রিসার্চ সম্প্রতি বাড়িতেই কোভিড পরীক্ষার অনুমোদন দিয়েছে। পুণের মাইল্যাব ডিসকভারি সলিউশনসের তৈরি ব়্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্ট বা ব়্যাট ব্যবহার করে কোভিড ১৯  জাবীণুকে সনাক্ত করা যায়। বাড়িতে বসেই করোনা পরীক্ষা করা যায় এই কিটের মাধ্যমে। 

আইসিএমআর-এর গাইডলাইন অনুযায়ী কোভিসেলফ নামে বাড়িতে ব্যবহারকারী করোনা পরীক্ষার কিটে পরীক্ষা করলে সঙ্গে সঙ্গেই রিপোর্ট পাওয়া যায়। এই কিট ব্যবহারকারীদের কোনও  চিকিৎসক বা স্বাস্থ্য কর্মী বা ডায়াগনস্টিক সেন্টারের কর্মীদের সাহায্য লাগবে না। নমুনা সংগ্রহের জন্য লাগবে না কোনও পেশাদারও। তাই এই কিট পরীক্ষাগারের চাপ দ্রুততার সঙ্গে কমিয়ে দেবে। 

আইসিএমআর জানিয়েছেন হোম টেস্টিং কিট ব্যবহার করে যে কোনও ব্যক্তি ইচিবাচক পরীক্ষা করাতে পারে।। সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি যদি এই কিটের পরীক্ষায় পজেটিভ হয় তাহলে তাঁকে করোনা আক্রান্ত বলেই চিহ্নিত করা হবে। যদি কোনও ব্যক্তি মনে করেন তাঁর করোনা লক্ষণ রয়েছে তাহলে হোম টেস্টিং কিট ব্যবহারের পরেও আরটিপিসিআর টেস্ট করাতে পারেন।

এখন প্রশ্ন হচ্ছে এই কিট কীভাবে ব্যবহার করতে হবে? 
তার উত্তরে এক বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক জানিয়েছেন,  প্রতিটি কিট পরীক্ষার পরে নারাপদে তা ফেলে দিতে হবে বা নষ্ট করে ফেলতে হবে। অনুনাসিক সোয়াব ব্যবহার করেই এই পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হয়েছে। এই কিটটি ১৫ মিনিটের মধ্যে ফলাফল বলে দেবে। যারা করোনা পজেটিভ হবেন তাঁদের অবিলম্বে আলাদা থাকার ব্যবস্থা করা জরুরি। পাশাপাশি স্বাস্থ্য কর্মীদের সঙ্গেও যোগাযোগ করতে হবে। 

ফলাফল জানাযাবে কীভাবে?
হোম টেস্টিং করোনা কিটে একটি নিয়ন্ত্রণ রেখা ও একটি পরীক্ষা লাইন কয়েছে। যদি কন্ট্রোল লাইনটি সি আর টেস্ট লাইট 'C' আর টেস্ট লাইন 'T' দুটি কার্টিজে উপস্থিত হয় তাহলে স্পষ্ট হয়ে যাবে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত। ফলাফল জানাতে মাত্র ১৫ মিনিট সময় নেবে এই কিট। এই কীট কী ভাবে ব্যবহার করতে হবে তা সবিস্তারে জানান রয়েছে ম্যানুয়ালে।