বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। পরিষেবা দিতে হিমশিম খাচ্ছেন স্বাস্থ্যকর্মীরা। এই পরিস্থিতি কাজের চাপ হালকা করতে এগিয়ে এল ভারতের প্রতিরক্ষা গবেষণা সংস্থা ডিআরডিও বা ডিফেন্স রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশন। ডিআরডিও এমন একটি রোবট তৈরি করেছে, যা করোনা রোগীদের সেবা করবে। এতে কিছুটা হলেও চাপ কমবে হাসপাতালের কর্মীদের। 

এই ইলেকট্রনিক রোবটটির নাম রাখা হয়েছে চেতন। আইসিইউতে ভর্তি করোনা রোগী বা করোনা ওয়ার্ডে কাজ করবে চেতন। স্বাস্থ্যকর্মীদের কাছে যেন দেবদূত হয়ে আসছে চেতন। কারণ করোনা ওয়ার্ডে প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করেন স্বাস্থ্যকর্মীরা। সেখানে রোবট চেতন তাঁদের হয়ে কাজ করলে সংক্রমণের ঝুঁকি অনেক কমবে। 

রোবট চেতনকে পরিচালনা করতে পারবেন হাসপাতালের যে কোনও কর্মী। এর জন্য প্রয়োজন হবে একটি অ্যান্ড্রয়েড ফোন। বর্তমানে চেতনকে ব্যবহার করছে দিল্লির ডিআরডিও পরিচালিত কোভিড হাসপাতাল। ডিআরডিও-র পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপের সাহায্যে চেতনকে কাজে লাগানো যাবে। এজন্য ডেস্কটপ বা ল্যাপটপ দিয়েও কাজ করা যাবে। 

চেতন তৈরি হয়েছে একটি ক্যামেরা দিয়ে। যার সাহায্যে এটিকে চালানো যাবে ও করোনা রোগীকে দেখা যাবে। চেতনে থাকবে তিনটি ট্রে। সমতল এলাকায় চেতন সহজেই যাতায়াত করতে পারবে। যে তিনটি ট্রে চেতনের মধ্যে রয়েছে, তাতে করোনা রোগীদের ওষুধ, জল , খাবারের মত জিনিস পৌঁছে দেওয়া যাবে। যেসব করোনা রোগীরা শয্যাশায়ী, তাদের কাছে পৌঁছে যাবে চেতন। 

এই রোবটে রয়েছে অ্যালার্ম সিস্টেমও। স্বাস্থ্যকর্মীরা চেতনের মাধ্যমে রোগীদের দেখতে পাবেন। এরই সঙ্গে চেতনের যাতায়াত নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন। ক্যামেরার মাধ্যমে কোনও আপদকালীন পরিস্থিতিতে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে পারবেন। ডিআরডিও-র সঙ্গে হাত মিলিয়ে চেতন নামক রোবটটিকে তৈরি করেছে কমব্যাট রোবোটিকস ইন্ডিয়া, দধিচি মিটিগেশন সলিউশনস, জিউস নিউমেরিক্স, পুনে অ্যান্ড এসআর ইঞ্জিনিয়ারিং সলিউশনস।