ফুটবল মাঠে এমন ঘটনা আকছারই ঘটে। কিন্তু ক্রিকেট বিশ্বকাপের মঞ্চেও যে তা ঘটতে পারে, তা দেখিয়ে দিল শনিবারের পাকিস্তান- আফগানিস্তান ম্যাচ। গ্যালারিতে হাতাহাতির জেরে বেশ কয়েকজন সমর্থককে মাঠ থেকে বের করে দেওয়া হয়। তার পরেও স্টেডিয়ামের বাইরে হাতাহাতিতে জড়ান দু' দলের সমর্থকরা। 

এমনিতে পাকিস্তান- আফগানিস্তান প্রতিবেশী দেশ। কিন্তু দু' দেশের সম্পর্ক যে খুব ভাল, তা নয়। বরং সবদিক থেকেই ভারতের উপরেই অনেক বেশি নির্ভরশীল আফগানরা। পাক মাটি থেকেই আফগানিস্তানে সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপ চালাচ্ছে তালিবানরা, এমন অভিযোগও নতুন নয়।

এ দিন হেডিংলিতে আফগানিস্তানের মুখোমুখি হয়েছিল পাকিস্তান। সেমি ফাইনালে যাওয়ার লড়াইয়ে টিকে থাকতে গেলে পাকিস্তানের কাছে এই ম্যাচের গুরুত্ব অপরিসীম। তাই ম্যাচ ঘিরে বেশ উত্তেজনা ছিলই। 

সংবাদসংস্থার খবর অনুযায়ী, এ দিন খেলার মাঝেই স্টেডিয়ামের উপর দিয়ে 'জাস্টিস ফর বালুচিস্তান' স্লোগান লেখা ব্যানার নিয়ে একটি ছোট বিমান চক্কর কাটকে থাকে। যা থেকে উত্তেজনার সূত্রপাত। কীভাবে ওই বিমান স্টেডিয়ামের উপরে এল, তা জানতে স্থানীয় এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোল তদন্তে নেমেছে। 

 

 

মাঠের মধ্যে হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়া সমর্থকদের বাইরে বের করে দিলে তাঁরা ফের সংঘর্ষে জড়ান বলে খবর। ছবি তুলতে গেলে সংবাদমাধ্যমের কর্মীদেরও মারধর করা হয়। নিরাপত্তারক্ষীদের লক্ষ্য করে জলের বোতল ছোড়া হয়। এক পাক সাংবাদিক অবশ্য টুইটারে দাবি করেন, আফগান সমর্থকরাই ঝামেলা পাকিয়েছেন। 

তবে মাঠের বাইরের ঝামেলার জন্য খেলায় প্রভাব পড়েনি। প্রথমে ব্যাট করে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ২২৭ রান তোলে আফগানিস্তান।