পর পর দুই দিন ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯-এর দুটি ম্যাচ বৃষ্টিতে ধুয়ে গিয়েছিল। তারপর হতোদ্যম হয়ে পড়া ক্রিকেট দুনিয়াকে চাগিয়ে তুলতে একটি জমজমাট মোকাবিলার দরকার ছিল। আর ঠিক সেটাই দেখা গেল পাকিস্তান বনাম অস্ট্রেলিয়া ম্যাচে। একসময় যদিও মনে হচ্ছিল বৃষ্টি এই ম্যাচেও থাবা মারবে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত পুরো খেলাই হল। ওঠাপড়ার ম্যাচে ৪১ রানে পরাজিত হল পাকিস্তান।

এদিন টসে জিতে আগে বল নিয়ে প্রথম ৩৪ ওভার পর্যন্ত দাঁতই ফোটাতে পারেননি পাক বোলাররা। সেই সময় অস্ট্রেলিয়া ছিল ২২৩/২ স্কোরে। ফিঞ্চ -ওয়ার্নারের ওপেনিং জুটি  ২২ ওভারে ১৪৬ রান তুলে দিয়েছিলেন। আমিরের বলে ৮২ রানে ফিঞ্চ ফিরে যান। তবে এদিন ডেভিড ওয়ার্নারের ব্যাট থেকে একদিনের ক্রিকেটে প্রত্যাবর্তনের পর প্রথম শতরানটি আসে। ১১টি চার ও ১টি ছয়ের সাহায্যে তিনি ১০৭ রান করেন।

তিনি আউট হওয়ার পর হঠাতই যেন ম্যাজিকের মতো পাল্টে যায় পাকিস্তানি বোলিং। এতক্ষণ যে বোলাররা জায়গায় বল রাখতে পারছিলেন না, তারাই নিখুঁত লাইন লেন্থ ধরে বল করা শুরু করেন। বিশেষ করে মহম্মদ আমির। এদিন তিনি ৩০ রান দিয়ে ৫টি উইকেট নিলেন।

পুরো ৫০ ওভারও টেকেনি অজি ইনিংস। মাত্র ৮৪ রানে শেষ ৮ উইকেট হারায় অস্ট্রেলিয়া। স্মিথ (১০), শন মার্শ (২৩), খোয়াজা (১৮), কেরি (২০) - কেউই দাঁড়াতে পারেননি। ৪৯ ওভারে ৩০৭ রানেই শেষ করে অজিরা।

রান তাড়া করতে নেমে শূন্য রানেই ফিরে যান ফখর জামান। ইমামমুল হক (৫৩), বাবর আজম (৩০), মহম্মদ হাফিজ (৪৬)-রা ভাল শুরু করেও বড় ইনিংস খেলতে পারেননি। একটা সময় ১৬০ রানে ৬ উইকেট পড়ে গিয়েছিল পাকিস্তানের।

সেখান থেকে  পাল্টা লড়াই ছুড়ে দিয়েছিলেন সরফরাজ (৪০) হাসান আলি (৩২) ও ওয়াহাব রিয়াজ (৪৫)-রা। বিশেষ করে হাসান ও রিয়াজ বেশ কয়েকটি বাউন্ডারি ওভারবাউন্ডারি মেরে অজিদের মেরুদণ্ডে কাঁপুনি ধরিয়ে দিয়েছিলেন।

মিচেল স্টার্কের ৪৫তম ওভারে নাটকীয়ভাবে ম্যাচের মোড় ঘুরে যায়। পর পর ওয়াহাব রিজ ও মহম্মদ আমিরকে ফিরিয়ে দেন স্টার্ক। আর ম্যক্সওয়েল রানআউট করেন সরফরাজকে। ফলে ৪৫.৪ ওভারে ২৬৬ রান তুলেই শেষ  পাকিস্তানি ইনিংস।