এর আগে খোলাখুলিই বলেছিলেন অজি ক্রিকেটারদের তিনি পছন্দ করেন না। স্মিথ-ওয়ার্নারের নির্বাসন নিয়েও কোনও সমবেদনা ছিল না তাঁর। বরং বলেছিলেন অজিরা যা অভদ্র, তাতে ঠিকই হয়েছে। কিন্তু নিজের দেশে বিশ্বকাপের আগে কিন্তু চিরাচরিত ইংরেজসূলভ ভদ্রতারই নিদর্শন পাওয়া গেল মইন আলির কথায়।

মঙ্গলবার দেশবাসীর প্রতি তিনি আহ্বান জানালেন স্টিভ স্মিথ ও ডেভিড ওয়ার্নারকে যেন ব্য়ক্তিগত আক্রমণ না করা হয়। বললেন খুব বেশি ক্ষোভের মুখে তাঁদের পড়তে হবে না বলেই আশা করেন তিনি। আর যদি একান্তই ইংরেজ দর্শকরা নিজেদের সামলাতে না পারেন, তাহলে সেই আক্রমণ যেন মজার মধ্যে সীমিত রাখা হয়। ব্যক্তিগত কাদা যেন ছোড়া না হয়।

এদিন তিনি আরও বলেন, 'মানুষ মাত্রেই ভুল করে থাকে। আমি জানি ভেতরে ভেতরে ওরা দুজনেই সম্ভবত ভালো মানুষ। আশা করি ওদের সঙ্গে বালো ব্যবহার করা হবে। আমি চাই আগামী ক'দিন শুধু ক্রিকেট নিয়েই কথা হোক।'

অতীতে, অ্যাশেজ সিরিজের সময় ইংরেজ দর্শকদের সংগঠন বার্মি আর্মির তীব্র আক্রমণের মুখে পড়তে হয়েছিল স্মিথ-ওয়ার্নার দুইজনকেই। আর এবার বল বিকৃতির অপরাধে এক বছরের নির্বাসন কাটিয়ে ফিরছেন তাঁরা। কাজেই এইবার আক্রমণের মাত্রা আরও বাড়বে বলেই আশঙ্কা অস্ট্রেলিয়ার। তার জন্য স্মিথ ওয়ার্নার তৈরি আছেন বলেও জানানো হয়েছিল।

অপর পক্ষে মইন আলি এর আগে জানিয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে শেষবার অ্যাশেজ খেলার সময় এক অস্ট্রেলিয় ক্রিকেটার তাঁকে 'ওসামা বিন লাদেন' বলে কটাক্ষ করেছিলেন। পরে অবশ্য সেই কথা অস্বীকার করেন সেই ক্রিকেটার। ওই অপমান তিনি সারা জীবনে ভুলতে পারবেন না বলেও জানিয়েছিলেন ইংরেজ অলরাউন্ডার।