গত বছর অক্টোবর মাসে বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নিয়েছিলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। দায়িত্ব নিয়েই বলেছিলেন ভারতীয় ক্রিকেট ও ক্রিকেটারদের উন্নতিই তার কাছে অগ্রাধিকার পাবে। তার আগে অবশ্য ৫ বছরেরও বেশি সময় সিওবির দায়িত্বভার সামলে এসেছিলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। ভারতীয় ক্রিকেটের সংবিধান অনুয়ায়ী ৬ বছরের বেশি সময় কেউ ভারতীর ক্রিকেটের কোনও প্রশাসক পদে নিযুক্ত থাকতে পারবে না। জেনে বুঝেই ১০ মাসর জন্য বিসিসিআই প্রেসিডেন্টের হিসেবে দায়িত্ব নিয়েছিলেন প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক। অবশেষে ২৭ জুলাই সোমবার বিসিসিআই প্রেসিডেনন্ট পদে মেয়াদ শেষ হয়েছে সৌরভের। 

আরও পড়ুনঃঅভিনব সিদ্ধান্ত আইসিসির, শুরু হচ্ছে ক্রিকেট বিশ্বকাপ সুপার লিগ

মেয়াদ শেষ হলেও এখনও পদ ছাড়তে হচ্ছে না বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ও সচিব জয় শাহকে। কারণ তাদের মেয়াদ বৃদ্ধির জন্য ইতিমধ্যেই সুপ্রিম কোর্টে আবেদন জানিয়েছে বিসিসিআই। কারন লোধা কমিশনের সুপারিশ অনুযায়ী ৬ বছরের প্রশাসক পদে নিযুক্ত থাকার পর য কোনও ব্যক্তিকে তিন বছরের জন্য কুলিং অফে যেতে হবে। কিন্তু এই বিপদের সময় বিসিসিআই চাইছে সৌরভ এবং তার টিমই সামলাক ভারতীয় বোর্ডকে। সেই কারণেই সুপ্রিম কোর্টে ২০২৫ সাল পর্যন্ত সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ও জয় শাহের মেয়াদ বৃদ্ধির জন্য আবেদন জানায় বিসিসিআই। গত ২২ শে জুলাই সুপ্রিম কোর্টে বোর্ড প্রেসিডেন্ট ও সেক্রেটারি পদে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ও জয় শাহের মেয়াদ বাড়ানোর মামলাটি উঠেছিল। তবে সেদিন সৌরভদের ভাগ্য নির্ধারণ হয়নি। সুপ্রিম কোর্ট জানিয়ে দেয় দু সপ্তাহ পরে বিসিসিআইয়ের আবেদন শুনবেন তারা।  পরবর্তী শুনানি ১৭ অগাস্ট। অর্থাৎ আগামি ১৭ অগাস্ট অথবা মামলার নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত দায়িত্বভার সামলাতে পারবেন সৌরভ ও জয়রা।

আরও পড়ুনঃ'বিরাট কোহলি একেবারে সাধারণ মানের ব্যাটসম্য়ান', তোপ পাক পেসারের

আরও পড়ুনঃ২০২৩ বিশ্বকাপ পর্যন্ত বোর্ড প্রেসিডেন্ট পদে সৌরভেই আস্থা সুনীল গাভাসকরের

 ইতিমধ্যেই সুনীল গাভাসকর বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট পদে সৌরভ এবং সেক্রেটারি পদে জয় শাহকে আগামী ২০২৩ একদিনের বিশ্বকাপ পর্যন্ত দেখতে চান বলে জানিয়েছেন। এক সংবাদ মাধ্যমে তিনি লেখেন, ২০২৩ বিশ্বকাপ ভারতে আয়োজিত হবে। ব্যক্তিগতভাবে আমি চাই সেই সময়কাল পর্যন্ত সৌরভ ও জয় বিসিসিআইয়ের দায়িত্বে থাকুক। কঠিন সময়ে গড়াপেটার ছায়া থেকে বের করে অধিনায়ক সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ভারতীয় ক্রিকেটকে যেভাবে সামনের দিকে চালিত করেছেন ঠিক একইভাবে বোর্ড প্রেসিডেন্ট হিসেবে সৌরভ তার দলবল নিয়ে সাফল্য এনে দিতে পারবেন বলে আশাবাদী গাভাসকর। অপরদিকে আইসিসি প্রেসিডেন্ট পদেও ক্রমশ জোরাল হচ্ছে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের নাম। সৌরভকে সমর্থন করেছেন গ্রেম স্মিথ, কুমার সঙ্গাকারা, ডেভিড গাওয়াররা। যদিও সৌরভ এবিষয়ে এখনও কোনও মুখ খোলেননি। বিসিসিআইয়ের কাজেই মনোনিবেশ করতে চান তিনি। তবে বিসিসিআইয়ের মসনদে সৌরভের ভাগ্য এখন সুপ্রিম কোর্টের হাতে।