জয় শ্রীরাম শুনলেই রেগে যাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর সেই স্লোগানই ক্রমে বাংলায় রাজনৈতিক হানাহানির নতুন কারণ হয়ে দাঁড়াচ্ছে। এবার স্বামীর জয় শ্রীরাম বলার অপরাধে স্ত্রীকে বিবস্ত্র করে মারধরের অভিযোগ উঠল বীরভূমে। অভিযুক্ত তৃণমূল কংগ্রেসের স্থানীয় নেতারা। প্রত্যাশিতভাবেই যাবতীয় অভিযোগ খারিজ করেছে শাসক দল। 

ঘটনার সূত্রপাত বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানের সময়। জানা গিয়েছে বীরভূমের ধোবাজল গ্রামেরব বাসিন্দা এক বৃদ্ধ প্রধানমন্ত্রীর শপথ গ্রহণের সময় জয় শ্রীরাম বলে চিৎকার করেন। অভিযোগ, শুক্রবার সকালে ওই বৃদ্ধের স্ত্রী বাড়ির বাইরে জল আনতে গেলে সেখানে চড়াও হয় তৃণমূলের স্থানীয় বুথ সভাপতি সুবোধ মণ্ডল এবং তাঁর স্ত্রী নীলিমী মণ্ডল। স্বামী কেন জয় শ্রীরাম বলেছেন, এই অপরাধে ওই বৃদ্ধাকে বেধড়ক মারধর ককরা হয় বলে অভিযোগ। আক্রান্ত বৃদ্ধার আরও অভিযোগ, মারধরের সময় তাঁকে বিবস্ত্র করে দেওয়া হয়। এই ঘটনার পরে সাংরা গ্রাম পঞ্চায়েতে ব্যাপক উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। 

অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা এবং তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে আমোদপুর পুলিশ ফাঁড়িতে গিয়ে অভিযোগ জানিয়েছে ওই বৃদ্ধ দম্পতি। দোষীদের কঠোর শাস্তির দাবি জানিয়েছেন তাঁরা। 

সাঁইথিয়া ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি প্রশান্ত সাধুর অবশ্য দাবি, এই ঘটনার সঙ্গে রাজনীতির কোনও সম্পর্ক নেই। পাড়ার কল থেকে জল নেওয়াকে কেন্দ্র করে দুই পরিবারের মধ্যে গণ্ডগোলের জেরেই এই ঘটনা বলে দাবি করেন তিনি। তাঁর দাবি, এর সঙ্গে তৃণমূল কোনওভাবে যুক্ত নয়। বিজেপি-র লোকেরাই ইচ্ছাকৃতভাবে এর মধ্যে তৃণমূলের নাম জড়াচ্ছে। 

Joy Shree Ram Controversy, BJP, TMC, বাংলায় জয় শ্রীরাম বিতর্ক, তৃণমূল, বিজেপি