বারবারই সিপিআইএম নেতারা দাবি করে থাকেন তাঁরা লড়াইয়ের ময়দানেই আছেন, মিডিয়ার প্রচার নেই বলে তাঁদের দেখা যায় না। ভোট বাক্সে গত কয়েক বছরে অবশ্য বামপন্থীদের এই দাবির প্রমাণ মেলে না। এহেন বিলুপ্তপ্রায় সিপিআইএম-এর জন্য হঠাত ব্যাট ধরলেন নাসিরুদ্দিন শাহ। গত কয়েক বছরে নরেন্দ্র মোদী সরকারের বিরুদ্ধে সরব হওয়া নাসির এক ভিডিও বার্তা পাঠিয়েছেন তাঁর 'বন্ধু' ডায়মন্ড হারবার কেন্দ্রের সিপিআইএম প্রার্থী ফুয়াদ হালিমের সমর্থনে। মুশকিল হল ফুয়াদকে দুর্নীতিহীন বলে শংসাপত্র দিয়ে কে ভোট দেওয়ার আবেদন করেছেন তিন। রাজনৈতিক মহলে প্রশ্ন উঠেছে তবে কি তৃণমূল প্রার্থী অভিষেক বন্দোপাধ্যায়কে ঘুরিয়ে দুর্নীতিগ্রস্ত বললেন তিনি?

ভিডিও বার্তায় নাসিরুদ্দিন বলেছেন, ডায়মন্ডবারের সিপিআইএম প্রার্থীকে তিনি ব্যক্তিগতভাবে চেনেন। পেশায় চিকিৎসক ফুয়াদ, প্রান্তিক মানুষদের বরাবর কম খরচে চিকিৎসা দিয়ে সাহায্য করে থাকেন। এখানেই শেষ নয়, নাসির বলেন প্রত্য়েকেরই ভোট দেওয়ার আগে প্রার্থীদের সম্পর্কে যথাযথ খোঁজখবর নেওয়া উচিত। দুর্নীতিগ্রস্ত প্রার্থীদের ভোট দেওয়া উচিত নয়। ফুয়াদকে তিনি দুর্নীতিহীন বলেই শংসা দেন।

Naseeruddin Shah has appealed people to vote for Fuad Halim, our candidate from Diamond Harbour Lok Sabha Constituency. Comrade Halim has been attacked thrice by TMC goons but he is fighting them back on streets. These attacks can't break our spirit. pic.twitter.com/tankBuSMop

— CPI (M) (@cpimspeak) May 4, 2019

 

কোনও দিনই প্রত্যক্ষভাবে রাজনীতির সঙ্গে জড়িত না থাকলেও বামপন্থার প্রতি তাঁর আস্থা প্রকাশেও কোনও লুকোছাপা ছিল না। কাজেই বাম প্রার্থীর হয়ে তাঁর প্রচার করাটাই স্বাভাবিক। কিন্তু মুশিল হয়েছে ফুয়াদের প্রধান প্রতিপক্ষ তৃণমূল কংগ্রেসের বর্তমান 'নাম্বার টু' অভিষেক বন্দোপাধ্যায় হওয়ায়। তিনিই এই কেন্দ্রের বিদায়ী সাংসদ।

 

গত কয়েক বছর ধরে বিভিন্ন সময়ে অসহিষ্ণুতা, কট্টরবাদ, বাকস্বাধীনতার মতো বিষয়গুলি নিয়ে বিজেপি তথা নরেন্দ্র মোদী সরকারের সমালোচনা করেছেন নাসিরুদ্দিন শাহ। এই রাজ্যে মমতা বন্দোপাধ্যায়-ও এই বিষয়গুলি নিয়েই মোদী বিরোধিতায় নেমেছেন। এমনকী, বিভিন্ন সময়ে নাসিরুদ্দিন-সহ বিশিষ্ট ব্যক্তিদের মন্তব্যকে খোলামেলা সমর্থনও জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। তারপর তাদের সমর্থন আশা করেছিল তৃণমূল কংগ্রেস। কাজেই নাসিরুদ্দিনের এই ভিডিও বার্তা তাদের সেই প্রত্যাশায় আঘাত করেছে।

নাসিরুদ্দিনের ভিডিও বার্তাটি ইতিমধ্যেই ডায়মন্ড হারবারে ছড়িয়েছে। যেভাবে তিন ফুয়াদের প্রতি সমর্থন প্রকাশ করে তাঁকে দুর্নীতিহীন বলে সার্টিফিকেট দিয়েছেন, তাতে ঘুরিয়ে অভিষেক বন্দোপাধ্যায়কেই তিনি দুর্নীতিগ্রস্ত বলে দেগে দিলেন কিনা সেই প্রশ্ন উঠেছে। বামপন্থীরা এই সুরেই প্রচার চালাচ্ছেন। অভিষেক বন্দোপাধ্যায় বা তৃণমূলের অন্য কোনও নেতা এখনও নাসিরের এই কান্ড নিয়ে কোনও মন্তব্য করেননি।