ভোটের দিন ফের বিতর্কে জড়ালেন আরজেডি সুপ্রিমো, লালুপ্রসাদ যাদবের বড়ছেলে তেজপ্রতাপ যাদব। এদিন পাটনার এক ভোট কেন্দ্রের বাইরে তাঁর ব্যক্তিগত নিরাপত্তারক্ষীদের এক চিত্রসাংবাদিককে ধরে বেদম মারতে দেখা গেল। তেজপ্রতাপের দাবি ওই চিত্র সাংবাদিক তাঁর গাড়ির উইন্ডস্ক্রিনের কাচ ভেঙে দিয়েছেন। শুধু তাই নয়, তাঁকে প্রাণে মারায় চক্রান্ত চলছে বলেও অভিযোগ করেছেন লালু-পুত্র।

রবিবার সকালে লালুপ্রসাদের জ্যেষ্ঠপুত্র এসেছিলেন পাটনার এক ভোটকেন্দ্রে ভোট দিতে। স্বাভাবিকভাবেই, তাঁর মতদানের পরের ছবি ক্যামেরা বন্দী করার জন্য প্রচুর চিত্র সাংবাদিক বুথের বাইরে জড়ো হয়েছিলেন। তাঁর প্রতিক্রিয়া ধরার জন্য ছিলেন বেশ কয়েকজন সাংবাদিকও।

তেজপ্রতাপ ভোট দিয়ে বের হতেই তাদের মধ্যে ধাক্কাধাক্কি শুরু হয়ে যায়। এর মধ্যে আচমকাই ভেঙে যায় তাঁর গাড়ির সামনের কাচ। তারপরই তাঁর ব্যক্তিগত দেহরক্ষীরা এক চিত্রসাংবাদিককে তার জন্য দায়ী করে বুথের বাইরেই বেদম প্রহার করেন। সামনেই দাঁড়িয়ে ছিলেন পুলিশ কর্মীরা। তাঁরাও কেউ বাধা দেননি। কয়েকজন সহ-সাংবাদিকের হস্তক্ষেপে ওই চিত্রসাংবাদিক রক্ষা পান।

তেজপ্রতাপের অবশ্য অভিযোগ ইচ্ছাকৃতভাবে তাঁর উপর হামলা চালানো হয়েছে। তাঁকে প্রাণে মেরে ফেলার ষড়ষন্ত্র চলছে। ওই চিত্র সাংবাদিকের বিরুদ্ধে স্থানীয় থানায় তিনি একটি এফআইআর-ও দায়ের করেছেন। সাংবাদিকদের সামনে দাবি করেছেন, তাঁর বাউন্সার বা দেহরক্ষরা কিছুই করেননি। তাঁদের কোনও দোষ ছিল না। ওই ফটোগ্রাফারই তাঁর গাড়ির কাচ ভেঙে দিয়েছেন।