বৃহস্পতিবার দিল্লীতে প্রধানমন্ত্রীর শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে নেমে ছিল মানুষের ঢল। যোগদান করেছিলনে বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা কলাকুশলিরাও। বাদ পরেননি প্রবাদপ্রতীম সঙ্গীত শিল্পী আশা ভোসলেও। তাঁর উপস্থিতি এদিন সকলের নজর কাড়লেও, অনুষ্ঠান শেষে চিত্রটা যায় পাল্টে।

রাত নটা নাগাত শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান শেষে হয়। বাড়ি ফেরার মুখে যে যার মতন ব্যস্ত হয়ে পড়লে ঘটে বিপত্তি, ভিরের মাঝে দিশাহারা হয়ে পরেন আশা ভোসলে। সকলের অলক্ষ্যে অসহায় অবস্থায় বাড়ি ফেরার চেষ্টা করছিলেন তিনিও। কিন্তু সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেননি কেউই।

এমনই অবস্থায় কেন্দ্রিয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি পাশে এসে দাঁড়িয়ে ছিলেন তাঁর। তাঁকে বাড়ি ফিরতে সাহায্য করেছিলেন তিনি। কেন্দ্রিয় মন্ত্রীর সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়ায় স্বস্তি বোধ করেন আশা ভোসলে। তাই বাড়ি ফিরেই স্মৃতির প্রশংসায় মুখ খুললেন তিনি। সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে সমস্ত ঘটনার বিবরণ দিয়ে আশা ভোসলে জানান, স্মৃতি সকলের যত্ন নেয়, তাই ও জয়ের মুখ দেখে।

পোস্টের উত্তরে ইমোজিতে জোড় হাতে ধন্যবাদ জানান স্মৃতি ইরানি। এদিন মন্ত্রীসভার শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বহু গুণীজন। তাদের নজরে পরেননি শিল্পী, পোস্টে আক্ষেপের সুরও ধরা দিল এই দিন। আশা ভোসলের বয়স এখন ৮৬ বছর। স্বাভাবিক ভাবেই ভিরের মধ্যে নিজেকে সামলে চলতে সমস্যার সন্মুখীন হতে হয়। বর্তমানে খুব একটা প্রকাশ্য অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণও করেন না তিনি। এদিন বাড়ি ফিরে স্মৃতি ইরানির সঙ্গে তোলা ছবি পোস্টও করেন আশা ভোসলে।