মতামত সমীক্ষা, বুথ ফেরত সমীক্ষা এবং আসল ফলাফল। নির্বাচনের সঙ্গে জড়িত এই তিন বিষয় নিয়ে একটি কুরুচিকর পোস্ট করে বিপাকে জড়ালেন বিবেক ওবেরয়। সোশ্যাল মিডিয়ায় এক ব্যক্তি ঐশ্বর্য রাইয়ের জীবনের তিন সম্পর্ককে নিয়ে এক নিম্ন মানের মেমে তৈরি করেছিলেন। সেটিই 'পিএম নরেন্দ্র মোদী' ছবির প্রধান অভিনেতা টুইট করেন।

ঐশ্বর্, রাইয়ের প্রথম জীবনে সলমন খানের সঙ্গে সম্পর্ক ছিল। তারপর কয়েক বছর তাঁর রোমান্টিক সম্পর্ক ছিল বিবেক ওবেরয়ের সঙ্গেই। শেষে অভিষেক বচ্চনকে তিনি বিয়ে করেন। অভিনেত্রীর এই ব্যাক্তিগত জীবনের তিন সম্পর্কের তিনটি ছবিকেই ওপিনিয়ন পোল, এক্সিট পোল ও রেসাল্ট হিসেবে দেখানো হয় ওই মেমেতে। এমনকী শেষ ছবিতে অভিষেক ও ঐশ্বর্যের সঙ্গে তাঁদের সাত বছরের শিশু কন্য়া আরাধ্যাও রয়েছে। এই ছবিটি পোস্ট করে সঙ্গে বিবেক লেখেন, 'হাহা, সৃষ্টিশীল! এর মধ্যে কোনও রাজনীতি নেই। শুধু জীবন।'

নরেন্দ্র মোদীর ভূমিকায় অভিনয় করা বিবেকের যে ছবিকে সৃষ্টিশীল বলে মনে হয়েছে, তাকেই 'ঘৃণ্য' এবং 'নিম্নশ্রেণী'-র বলেছেন বলিউড অভিমনেত্রী সোনম কাপুর। প্রাক্তন ব্যাডমিন্টন তারকা জ্বালা গাট্টা সোশ্যাল মিডিয়ায় বলেছেন, 'আপনি এই টুইটটা করছেন, এটাই হাস্যকর। হতাশাজনক'। সাংবাদিক পল্লী জোশী বলেথেন, 'লজ্জাজনক। কোনও মান যে নেই সেটাই বোঝা যাচ্ছে। ক্ষমা দাবি করাটাও অতিরিক্ত প্রত্যাশা হয়ে যাবে।'

সাংবাদিক কমলেশ সুতার ও নিউজ অ্যাঙ্কর মানাক গুপ্তাও তীব্র সমালোচনা করেছেন বিবেক ওবেরয়-এর এই পোস্ট-এর। কমলেশ সুতার বলেছেন, বিবেক কোনওদিনই মহিলাদের সম্মান করতে জানতেন না, কোনদিন জানবেন বলে মনেও হয় না। সরাসরি পিএম মোদীর অভিনেতাকে 'লুজার' বলেছেন তিনি। অপরদিকে মানাক গুপ্তা বলেছেন বিশেষত একজন শিশু যেখানে এই ছবিতে রয়েছে, সেখানে এটা পোস্ট করা খুব খারাপ রুচির পরিচয়।

এই নিয়ে চর্চা শুরু হতেই খবর পৌঁছায় মহারাষ্ট্রের মহিলা কমিশনের প্রধান বিজয়া রাহাতকারের কাছে। তিনি জানিয়েছেন, তাঁরা পুরো বিষয়টি নিয়ে খোঁজ খবর নিচ্ছেন। এবং ইতিমধ্যেই বিবেককে নোটিশ পাঠানোর প্রক্রিয়া শুরু করা হয়েছে। শুধু রাজ্য মহিলা কমিশনই নয়, জাতীয় মহিলা কমিশনও তাঁর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের কথা জানিয়েছে। রেখা শর্মা বলেছেন, বিবেক-কে সোশ্যাল মিডিয়ায় ও ঐশ্বর্যের কাছে ব্যক্তিগতভাবে ক্ষমা চাইতে হবে। নাহলে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। টুইটার কর্তৃপক্ষকে  বলা হবে ওই টুইটটি মুছে দেওয়ার জন্য।

সাধারণ মানুষও একেবারেই ভালোভাবে নেয়নি বিবেকের এই 'অসুস্থ মসকরা'। বিবেক ওবেরয়-এর রসবোধ কত ভোঁতা তাই নিয়ে জোর চর্চা হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। কেউ কেউ বলেছেন ব্যঙ্গ করেই একজন বিবেকহীন লোকের নাম রাখা হয়েছে বিবেক। কেউ কেউ এক পা বাড়িয়ে তাঁর স্ত্রী বোনদের আগের সম্পর্কের ছবি নিয়ে মেমে তৈরি করার পরামর্শ দিয়েছেন বিবেক ওবেরয়কে।