প্রয়াত হলেন ইংল্যান্ডের জাতীয় দল ও লিভারপুলের কিংবদন্তী ফুটবলার রে ক্লিমেন্স। দীর্ঘদিন ধরে ক্যান্সারে আক্রান্ত ছিলেন তিনি। অবশেষে ৭২ বছর বয়ে়সে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করলেন লেজেন্ড গোলরক্ষক। পরিবারে রেখে গেলেন তার স্ত্রী ও এক পুত্র ও এক কন্যা। রে ক্লিমেন্সের মৃত্যুর খবর আসতেই কান্নায় ভেঙে পড়ে তার পরিবার। রে ক্লিমেন্সের প্রয়াণে শোকস্তব্ধ ফুটবল মহল।  শোক প্রকাশ করে ইংল্যান্ডের জাতীয় ফুটবল, লিভারপুল ক্লাব, টটেনহ্যাম ক্লাব ও বহু ফুটবলার।

 

 

জাতীয় দলের জার্সি গায়ে মোট ৬১টি ম্যাচ খেলেছেন রে ক্লিমেন্স। আরও বেশি ম্যাচ খেলতে পারতেন তিনি, যদি না তার প্রতীদ্বন্দ্বীর নাম পিটার শিল্টন হতেন। এছাড়া ক্লাব ফুটবলে লিভারপুল ও টটেনহ্যামের মত বড় দলের হয়ে খেলেছেন তিনি। লিভারপুলের হয়ে ৩টি ইউরোপিয়ান কাপ, পাঁচটি প্রথন ডিভিশন টাইটেল দুটি উয়েফা কাপ ও এফএ কাপ ও লিগ কাপও জিতেছেন লিভারপুলের হয়ে। টটেনহ্যানের হয়েও একটি উয়েফা কাপ ও এফএ কাপ জিতেছেন ক্লিমেন্স।

 

 

২০০৫ সালে প্রস্টেট ক্যানসারে আক্রান্ত হন রে ক্লিমেন্স। সকলেই বলেছিলেন , ৫ থেকে ৬ বছরের বেশি বাঁচা সম্ভব নয়। কিন্তু ১৫ বছর ধরে ক্যান্সারের সঙ্গে লড়াই করেছেন তিনি। তিনি একসময় জানিয়েছিলেন, ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার পর সবাই ভেঙে পড়েছিল। কিন্তু আমি ভেভে পড়েনি। লড়াই চালিয়ে গিয়েছে। আর এই সময়ে আমার জীবনে যা যা করার ইচ্ছে ছিল সবকিছুই করে নিয়েছে। কিংবদন্তী গোল রক্ষকের প্রয়াণে শোকস্থব্ধ গোটা ফুটবল বিশ্ব ও তাঁর অসংখ্য ফুটবল প্রেমিরা।