সমস্ত রকম প্রতিকুলতা বা প্রতিবন্ধকতা তার কাছে তুচ্ছ। ভগবানের নিদানকেও হেলায় উড়িয়ে দিচ্ছে সে। জেদ ও ইচ্ছা শক্তিই তার প্রধান হাতিয়ার। আর তাতেই এক পায়ে ফুটবল খেলে সকলের নয়নের মণি হয়ে উঠল সে। জীবন সংগ্রামে হার না মানা মনোভাবটা না থাকলে হয়তো মণিপুরের ছোট্ট কুণালকে চিনতো না কেউই। কিন্তু বর্তমানে নেট দুনিয়ায় তার জনপ্রিয়তা টক্কর দিচ্ছে বড় বড় ফুটবলারদেরও। কুণালের কথা এখন সকলের মুখে মুখে।

কুণাল শ্রেষ্ঠা। মণিপুরের রাজধানী ইম্ফলের বাসিন্দা। বর্তমানে চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র। জন্ম থেকেই প্রতিবন্ধকতা তার সঙ্গী। একটি পা নেই কুণালের। ফুচবল খেলা তার খুব প্রিয়। কিন্তু ঈশ্বর যে তাকে প্রতিবন্ধী করে পাঠিয়েছে পৃথিবীতে। তাই ভগবানের সঙ্গেই চ্যালেঞ্জটা নিয়ে নিয়েছেন ছোট্ট কুণাল। এক পায়েই ফুটবল খেলা শুরু করে সে। এক হাতে ক্রাচ নিয়ে ফুটবল খেলতে প্রথমে খুবই অসুবিধা হত তার। দেহের ভারসাম্য রাখতে অসুবিধে হত। কিন্তু অদৃষ্টের সঙ্গে লড়াইতে হার  মানতে রাজি ছিল না কুণাল। আর ধীরে ধীরে অনুশীলন করতে করতে এখন দিব্যি পাঁচটা স্বাভাবিক বাচ্চাদের সঙ্গে ফুটবল খেলে কুণাল। তার ফুটবল খেলার ভিডিও নেট দুনিয়ায় ছড়িয়ে পড়তেই তা ভাইরাল হয়ে যায়।

 

 

কুনাল ও তার ফুটবল খেলায় তার পরিবারের লোকেরাও তাকে সবসময় মনের জোর দিয়েছে। কোনওদিন বুঝতে দেয়নি সে আর পাঁচটা বাচ্চার থেকে আলাদ। কুণালের মা জানিয়েছেন,'জন্ম থেকেই একটি অঙ্গ নেই। কিন্তু আমি ওকে কোনওদিন এটা ভাবতে শেখাইনি যে ও অন্যদের থেকে আলাদা। নিজেকে কখনও কারও থেকে কোনও অংশে কম ভাবে না কুণাল। নিজের চেষ্টাতেই সাইকেল চালানো শিখেছে'। বর্তমানে কুণাল তার ফুটবল কেলাকে উপভোগ করেন এবং আরও উন্নতি করতে চান। সকলের কাছে উদাহরণ হয়ে উঠেছে ছোট্ট কুণাল।