সাধারণত ফিট প্লেয়ারদের সংত্রমণ এতদিন থাকে না। কিন্তি করোনা ভাইরাস যেন কিছুতেই পিছু ছাড়ছে না ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর। দ্বিতীয়বার পরীক্ষাতেও করোনা রিপোর্ট পজেটিভ ধরা পড়ল ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর। যারফলে চিন্তা বাড়ল পর্তুগীজ ফুটবল ফেডারেশন ও তার ক্লাব জুভেন্টাসের। ফিফার নিয়ম অনুযায়ী ম্যাচের এক সপ্তাহ আগে করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ আসতে হবে। রোনাল্ডোর করোনা পরীক্ষার ফল ফের পজিটিভ আসায় বার্সেলোনার বিরুদ্ধে খেলতে পারবেন না তিনি। বার্সার মত বড় দলের বিরুদ্ধে নামার আগা ধাক্কা জুভেন্টাসের। 

আন্তর্জাতিক বিরতির সময় পর্তুগাল শিবিরে পরীক্ষায় প্রথমবার করোনা আক্রান্ত ধরা পড়েছিল ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর। নেশনস কাপের আন্তর্জাতিক  বিরতিতে পর্তুগাল জাতীয় দের সঙ্গে যোগ দিয়েছিললেন সিআরসেভেন। সুইডেনের বিরুদ্ধে ম্যাচে নামার আগে ১৩ অক্টোবর প্রথম করোনা রিপোর্ট পজেটিভ আসে পর্তুগীজ তারকার।  ম্য়াচে নামার আগে পর্তুগাল দলের সকল প্লেয়ারদের করোনা পরীক্ষা করা হয়। কিন্তু দলের অন্য়ান্য সকল প্লেয়ার সহ অন্যান্য সদস্যদের করোনা ভাইরাস টেস্ট রিপোর্ট লেগটিভ আসলেও, ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর করোনা আক্রান্ত বলে জানা যায়।

এই খবর প্রকাশ্যে আসার পরই উদ্বেগ প্রকাশ করে ফুটবল বিশ্ব। যদিও কোনও উপসর্গ ছিল না রোনাল্ডোর। আইসোলেশ ছিলেন রোনাল্ডো। শারীরিক অবস্থাও স্থিতিশীল ছিল। সকলেই ভেবেছিলেন প্রথম দফার পরীক্ষাতেই করোনা মুক্ত হবেন সিআরসেভেন। নামবেন বার্সার বিরুদ্ধে বড় ম্যাচে। কিন্তু সকলকে হতাশ করে ফের রিপোর্ট পজেটিভ আসায় আইসোলেশনেই থাকতে হচ্ছে ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডকে। চিকিৎসকরা তাকে পর্যবেক্ষ রেখেছেন। খু শীঘ্রই রোনাল্ডোর করোনা মুক্তির বা আরোগ্য কামনা করেছেন বিশ্ব জুড়ে তা কোটি কোটি ভক্তরা।