প্রতীক্ষার অবসান ঘটতে চলেছে ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো ভক্তদের। প্রায় এক মাস পরে ফের বল পায়ে মাঠে খেলতে দেখা যাবে ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোকে। তবে এবার ক্লাবের জার্সি গায়ে নয়, দেশের জার্সি গায়ে মাঠে ফিরতে চলেছেন "সি আর সেভেন"। সেপ্টেম্বর মাসেই শুরু হবে ইউরোপের নামী ফুটবল খেলিয়ে দেশগুলির নেশনস লিগের মূল পর্বের জন্য যোগ্যতা অর্জন পর্বের লড়াই। সেই লড়াইয়ে আবার ১০ মাস পরে পর্তুগালের জার্সি গায়ে মাঠে নামতে তৈরি ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। তবে দেশের দলে যোগ দেওয়ার আগে এখন তুরিনে জুভেন্তাসের প্রস্তুতি শিবিরে যোগ দিয়েছেন তিনি। 

২০১৮ সালে পরিকল্পিত নেশনস লিগের দ্বিতীয় সংস্করণ আসন্ন প্রতিযোগিতাটি। ২০১৯ সালে নেদারল্যান্ডস কে ফাইনালে হারিয়ে নেশনস লিগ ঘরে তুলেছিল পর্তুগাল। সেমিফাইনালে সুইজারল্যান্ডের বিরুদ্ধে হ্যাটট্রিক করেছিলেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। এবার পর্তুগালের সামনে লড়াই খেতাব রক্ষার। নেশনস লিগের মূলপর্বে পৌঁছতে গ্রূপ শীর্ষে থেকে যোগ্যতাঅর্জন পর্ব শেষ করতে হবে রোনাল্ডো, পেপেদের। কিন্তু তাদের কাজটা এতটা সহজ হবে না। কারণ যোগ্যতাঅর্জন পর্বে তাদের খেলতে হবে লুকা মদ্রিচের ক্রোয়েশিয়া, কিলিয়ান এমব্যাপের ফ্রান্স এবং ডেজান কুলসভস্কির সুইডেনের বিরুদ্ধে। 

পর্তুগালের এই ২৫ জনের দলে চমক বলতে দলে প্রথমবারের জন্য ডাক পেয়েছেন বার্সার প্রাক্তন তরুণ উইঙ্গার ট্রিনকাও। এছাড়া দীর্ঘদিন পরে দলে ফিরেছেন এককালে পরবর্তী ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো আখ্যা পাওয়া রেনাতো স্যানসেজ। এছাড়া ম্যান সিটির বার্নার্ডো সিলভা, ম্যান ইউয়ের ব্রুনো ফার্নান্দেজ, অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের জোয়াও ফেলিক্স সকলেই ডাক পেয়েছেন দলে। অভিজ্ঞ গোলকিপার রুই প্যাট্রিসিও এবং অভিজ্ঞ ডিফেন্ডার পেপেও দলে রয়েছেন। ৫ ই সেপ্টেম্বর ক্রোয়েশিয়ার বিরুদ্ধে খেলে অভিযান শুরু করছেন রোনাল্ডোরা।