মঙ্গলবার ফিফা বিশ্বকাপের যোগ্যতা অর্জন পর্বে বাংলাদেশের মুখোমুখি হতে চলেছেন ভারতীয় ফুটবল দল। কাতারের বিরুদ্ধে ফিফা কোয়ালিফায়ারে দুরন্ত ফুটবল খেলে কাতারকে রুখে দিয়েছিলেন আইগর স্টিমাচের ছেলেরা। তবে সেই ম্যাচে গোলশূন্য ড্র করলেও, বাংলাদেশের বিরুদ্ধে রবিবার জয় কেই লক্ষ্য রেখে মাঠে নামছে সুনীল ছেত্রীর ভারত। রবিবার সুনীলদের স্বাগত জানাতে দমদম বিমানবন্দরে হাজির ছিলেন হাজারেরও বেশি ভারতীয় সমর্থক। বাঙালির ফুটবল আবেগের কারণে এবছর প্রবল আশা নিয়েই সুনীলদের ম্যাচ দেখতে যাবে কলকাতা ও বাংলার ফুটবল প্রেমীরা। আর বিজয়া দশমীর পর ও দীপাবলির আগে বাঙালিদের কি গিফট দিচ্ছে ভারতীয় ফুটবল দল সেটাই এখন দেখার।

আরও পড়ুন, বাংলাদেশের বিরুদ্ধে টিম ইন্ডিয়ার সেরা চার বাজি, এদের ওপরই ভরসা স্টিমাচের

এখনও পর্যন্ত সব রকমে পরিসংখ্যান অনুযায়ী ব়্যাঙ্কিংয়ে ১০৪ নম্বরে আছে ভারতীয় দল। সেই জায়গায় বাংলাদেশের ব়্যাঙ্কিং ১৮৭। দুই দেশের মধ্যে সাক্ষাতকার হয়েছে ২৫ বার। আর সেই সঙ্গে ভারতীয় দল জিতেছে ১৩ বার। বাংলাদেশ জিতেছে ৫ বার ও ৪ টি ম্যাচে ড্র করেছে দুই দেশ। ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের শেষ সাক্ষাত হয়েছিল ২০১৪ সালে। সেই ম্যাচে সুনীলের জোড়া গোলে ২-২ ফলে ড্র করেছিল দুই দল। চলতি বিশ্বকাপ কোয়ালিফায়ারে একটাও ম্যাচ এখনও পর্যন্ত জিততে দেখা যায়নি ভারতকে। তবে কাতারকে রুখেছে ভারত। সেই তুলনায় এবার বাংলাদেশের থেকে খাতায় কলমে এগিয়ে আছে ভারত।

আরও পড়ুন, যুবভারতীতে ভারত-বাংলাদেশ লড়াই, ফুটবল উন্মাদনায় ফুটছে শহর

রবিবার কলকাতায় পা রেখেই অনুশীলনে নেমে পরেছিল ভারতীয় দল। একই সঙ্গে সোমবারও হাল্কা মেজাজে অনুশীলন করল ভারতীয় ফুটবলাররা। ম্যাচের আগের দিন নিজেদের টেকনিকের দিকে সেভাবে মাথা ঘামাতে দেখা যায়নি স্টিমাচকে। তবে মঙ্গলবার বেশ প্রস্তুতি নিয়েই মাঠে নামবে ভারত এমনটা নিশ্চিত ভারতীয় ফুটবলারদের শরিরি ভাষা দেখে। যুবভারতীর সব টিকিট এই মুহূর্তে বিক্রি হয়ে গিয়েছে। মঙ্গলবারের যুবভারতী হাউসফুল হতে চলেছে সেটাও নিশ্চিত। আর এই ফুল হাউসের মধ্যে বাড়তি সমর্থনও থাকবে সুনীল, গুরপ্রীতদের জন্য।

 

 

বর্তমানে ভারতীয় দল থেকে চোটের কারণে নেই সন্দেশ ঝিংগন। বাংলাদেশের বিরুদ্ধেও পাওয়া যাবে না তাঁকে। তবে সন্দেশকে নিয়ে ভাবতে নারাজ ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্ট। সন্দেশের জায়গায় বিকল্প রক্ষণভাগে খেলোয়াড় নামাবেন আইগর স্টিমাচ। আক্রমণ ভাগে মূলত প্রথম একাদশে থাকবেন সুনীল ছেত্রী সহ মনভির সিং। মাঝ মাঠে সম্ভাব ভাবে প্রথম একাদশে খেলতে দেখা যেতে পারে উদান্তা সিং, অনিরুদ্ধ থাপা, আনাস ও ব্রেন্ডনকে। পাশাপাশি এদিন রক্ষণ ভাগের দায়িত্বে থাকতে পারেন ভারতের প্রীতম কোটাল, রাহুল বেহকে, আদিল খান ও মন্দরকে। তিনকাঠির নিচে থাকছেন ভারতের ভরসা যোগ্য গোলক্ষক গুরপ্রীত সিং সান্ধু। পরিবর্ত খেলোয়াড় হিসাবে মাঠে দেখা যেতে পারে বলবন্ত সিং, সার্থক গৌলুইদের। তবে নিজেদের সেরা শক্তি নিয়েই মঙ্গলবার খেলা শুরু করতে চলেছে ভারত।

 

 

একই সঙ্গে সোমবার ম্যাচের আগের দিন অনুশীলন করলেন বাংলাদেশ দলের ফুটবলাররা। কলকাতার মাঠে ভারতীয় দলরে হারানো লক্ষ্য তাঁদের। ভারতের বিরুদ্ধে ভালো ফুটবল খেলতে চাইছে বাংলাদেশ। সন্দেশ ঝিংগনের মতন ফুটবলাররা না থাকায় অনেকটা অ্যাডভান্টেজ পাচ্ছে ওপার বাংলার দল। ফিফা কোয়ালিফায়ারে ইতিমধ্যেই দুটি ম্যাচে হেরে বসে আছে বাংলাদেশ। তবে ভারতের বিরুদ্ধে একটি নজির গড়তে চাইছে বাংলাদেশ দল। দলের অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়া বলেন,'সন্দেশ ঝিংগন নেই। একটা অ্যাডভান্টেজ। ভারতীয় দলে সবাই তারকা। ইন্ডিয়া হোম টিম। ৬০ হাজার দর্শকের সামনে খেলবে। এমন একটা পরিবেশে আমরাও প্রথম বার খেলবে। আর সেই জায়গায় বেগ দিতে চেষ্টা করবো ভারতীয় দলকে। সুনীলের জন্য আলাদা প্ল্যানিং নেই। সবাইকে ভালো খেলতে হবে। স্কোর জানিনা। তবে ভালো ফুটবল খেলাই লক্ষ্য দলের।' মঙ্গলবার হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে নামতে দেখা যাবে দুই দলকে। তবে শেষ বাজি কে জিতবে সেটা সময়ই বলে দেবে।
 

আরও পড়ুন, বাংলাদেশকে সমীহ করছেন ভারতীয় কোচ স্টিমাচ, দল নিয়ে আত্মবিশ্বাসী সুনীল ছেত্রী