ইউয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগে দুই তিন মরশুম আগেও একচেটিয়া দাপট চলত রিয়াল মাদ্রিদের। কিন্তু এখন সেই চ্যাম্পিয়ন্স লিগেই টানা তিন ম্যাচ ধরে জয় অধরা রিয়াল মাদ্রিদের। নতুন মরশুমের চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শুরুটা দুঃস্বপ্নের মতো হলো জিদানের দলের। বুধবার ঘরের মাঠে নিজেদের গ্রুপের ম্যাচে ইউক্রেনের ক্লাব শাখতার ডনেস্কের কাছে ৩-২ গোলে হেরে গেল রেকর্ড ১৩ বার ইউসিএল চ্যাম্পিয়নরা। গত মরশুমে শেষ ষোলোর পর্বের দুই লেগেই ম্যানচেস্টার সিটির কাছে ২-১ গোলে পরাজিত হয়ে বিদায় নিয়েছিল জিনেদিন জিদানের দল। শেষ বার মাদ্রিদ প্রতিযোগিতায় টানা তিন হারের মুখ দেখেছিল ১৯৮৬ সালে।

আলফ্রেডো ডি স্টেফানো স্টেডিয়ামে প্রথমার্ধেই ৩-০ গোলে পিছিয়ে পড়েছিল রিয়াল। এর মধ্যে একটি গোল শাখতারের দ্বিতীয় গোলটি ছিল রাফায়েল ভারানের আত্মঘাতী গোল। সার্জিও র‍্যামোসের চোট থাকায় ভারানে ও এদের মিলিটাওকে দিয়ে ডিফেন্স সাজিয়েছিল রিয়াল কোচ জিদান। কিন্তু চূড়ান্তভাবে ফ্লপ করে কাল রিয়ালের ডিফেন্স। দ্বিতীয়ার্ধে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করে রিয়াল মাদ্রিদ। ৫৪ তম মিনিটে কালকের ম্যাচের অধিনায়ক মার্সেলোর পাস থেকে লুকা মডরিচের গোলে ব্যবধান কমায় আয়োজকরা। ৫ মিনিট পর পরিবর্ত হিসাবে নামা ভিনিসিয়াস জুনিয়র মাঠে নামার ১৪ সেকেন্ডের মধ্যে গোলে করে ব্যবধান আরও কমান।  ঘুরে দাঁড়ানোর আভাস দেয় রিয়াল। কিন্তু অতিরিক্ত সময়ে ফেদেরিকো ভালভার্দের শট যখন জালে জড়ায় তখন অফসাইড অবস্থায় গোলকিপারের দৃষ্টিপথ আটকে দাঁড়িয়েছিলেন রিয়ালের এক খেলোয়াড়। ভিএআর পর্যালোচনায় তা দেখা যায়, ফলে বাতিল হয়ে যায় রিয়ালের সমতাসূচক গোলটি। শাখতারের প্রধান দলের ১০ জন ফুটবলার করোনা আক্রান্ত হয়ে থাকায় দ্বিতীয় সারির দল নামিয়েছিল তারা। তারাই নাকানি চোবানি খাইয়ে দিল বিশ্বের অন্যতম সেরা ক্লাবকে। শনিবার মেসিদের বিরুদ্ধে নামার আগে এই হার চিন্তার ভাঁজ বাড়ালো জিদানের টাকের। 

রিয়ালের গ্রুপের অপর ম্যাচে জার্মান ক্লাব বরুশিয়া মনচেনগ্ল‍্যাডব‍্যাকের সঙ্গে ২-২ গোলে ড্র করেছে ইন্টার মিলান। ইন্টারের হয়ে জোড়া গোল করেন বেলজিয়ান স্ট্রাইকার রোমেলু লুকাকু। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের অপর গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচগুলির মধ্যে লিভারপুল, আয়াক্সকে হারিয়েছে ১-০ ব্যবধানে। ম্যানচেস্টার সিটি, পর্তুগালের ক্লাব পোর্তোকে হারায় ৩-১ ব্যবধানে। গতবারের চ্যাম্পিয়ন বায়ার্ন মিউনিখ ৪-০ ব্যবধানে হারায় অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদকে।