ভাগ্য ফেরাতে শিব চতুর্দশীতে পালন করুন এই রীতি, রাশি অনুযায়ী জেনে নিন নিয়ম

First Published 12, Feb 2020, 12:04 PM

শাস্ত্র মতে, সৃষ্টির পূর্বে একমাত্র শিবই বর্তমান ছিলেন। তিনিই লীলাচ্ছলে ব্রহ্মারূপে সৃষ্টি করেন, বিষ্ণুরূপ ধারণ করে পালন করেন আবার রুদ্ররূপ ধারন করে সংহার করেন। ব্রহ্মা-বিষ্ণু-হর তারই সৃষ্টি-স্থিতি-লয়ের তিনটি রূপভেদ মাত্র। তাই এই তিন রূপের মধ্যে সত্বার কোন পার্থক্য নেই। তবু সনাতন রূপ পরম শিবরূপই মূলস্বরূপ। 

এই বছরে বাংলায় ৮ ফাল্গুন ১৪২৬, ইংরেজির ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২০, শুক্রবার শ্রীশ্রীশিবরাত্রি ব্রত ও পূজা। স্মার্ত্তমতে সন্ধ্যা ঘ ৫/৪১ গতে শ্রীশ্রীশিবরাত্রি ব্রত ও পূজা ও শিবচতুর্দ্দশী পালন। গোস্বামিমতে পরাহে শ্রীশ্রীশিবরাত্রি ব্রত ও পূজা ও শ্রীশ্রীশিবরাত্রি ব্রত উপবাস।

এই বছরে বাংলায় ৮ ফাল্গুন ১৪২৬, ইংরেজির ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২০, শুক্রবার শ্রীশ্রীশিবরাত্রি ব্রত ও পূজা। স্মার্ত্তমতে সন্ধ্যা ঘ ৫/৪১ গতে শ্রীশ্রীশিবরাত্রি ব্রত ও পূজা ও শিবচতুর্দ্দশী পালন। গোস্বামিমতে পরাহে শ্রীশ্রীশিবরাত্রি ব্রত ও পূজা ও শ্রীশ্রীশিবরাত্রি ব্রত উপবাস।

তিনি কৈলাস পর্বতে সন্ন্যাসীর জীবন যাপন করেন।আবার গৃহস্থ রূপে তিনি পার্বতীর স্বামী। তার দুই পুত্র বর্তমান। এঁরা হলেন গণেশ ও কার্তিক। ভয়ঙ্কর রূপে তাকে প্রায়শই দৈত্যবিনাশী বলে বর্ণনা করা হয়। শিবকে যোগ, ধ্যান ও শিল্পকলার দেবতাও মনে করা হয়। শাস্ত্র মতে শিবের পুজোর উপকরণের সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে নানা সমৃদ্ধির সম্ভাবনা।

তিনি কৈলাস পর্বতে সন্ন্যাসীর জীবন যাপন করেন।আবার গৃহস্থ রূপে তিনি পার্বতীর স্বামী। তার দুই পুত্র বর্তমান। এঁরা হলেন গণেশ ও কার্তিক। ভয়ঙ্কর রূপে তাকে প্রায়শই দৈত্যবিনাশী বলে বর্ণনা করা হয়। শিবকে যোগ, ধ্যান ও শিল্পকলার দেবতাও মনে করা হয়। শাস্ত্র মতে শিবের পুজোর উপকরণের সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে নানা সমৃদ্ধির সম্ভাবনা।

শিবরাত্রির দিনে মেষ রাশি কাঁচা দুধ এবং দই দিয়ে শিবলিঙ্গকে স্নান করিয়ে ধুতরো ফুল অর্পণ করুন। সেই সঙ্গে আরতি করুন কর্পূর দিয়ে। কাটবে সমস্ত বাধা ও বিপত্তি।

শিবরাত্রির দিনে মেষ রাশি কাঁচা দুধ এবং দই দিয়ে শিবলিঙ্গকে স্নান করিয়ে ধুতরো ফুল অর্পণ করুন। সেই সঙ্গে আরতি করুন কর্পূর দিয়ে। কাটবে সমস্ত বাধা ও বিপত্তি।

শিবরাত্রির আগের ও পরের দিন বৃষ রাশি অবশ্যই পালন করুন পারন। শিবরাত্রিতে জুঁই ফুলের আতর ছড়িয়ে ভোগ নিবেদন করুন এবং আরতি করুন।

শিবরাত্রির আগের ও পরের দিন বৃষ রাশি অবশ্যই পালন করুন পারন। শিবরাত্রিতে জুঁই ফুলের আতর ছড়িয়ে ভোগ নিবেদন করুন এবং আরতি করুন।

মিথুন রাশি স্ফটিকের শিবলিঙ্গকে লাল আবির, সিঁদুর, চন্দন, আতর দিয়ে পুজো করুন। নীলকন্ঠ ফুল নিবেদন করুন এবং মিষ্টি ভোগ অর্পণ করুন। দূর হবে সকল সমস্যা।

মিথুন রাশি স্ফটিকের শিবলিঙ্গকে লাল আবির, সিঁদুর, চন্দন, আতর দিয়ে পুজো করুন। নীলকন্ঠ ফুল নিবেদন করুন এবং মিষ্টি ভোগ অর্পণ করুন। দূর হবে সকল সমস্যা।

অষ্টগন্ধ চন্দন দিয়ে কর্কট রাশি শিবলিঙ্গের অভিষেক করুন। বাতাসা ও নকুলদানা দিয়ে ভোগ নিবেদন করে আরতি করুন।

অষ্টগন্ধ চন্দন দিয়ে কর্কট রাশি শিবলিঙ্গের অভিষেক করুন। বাতাসা ও নকুলদানা দিয়ে ভোগ নিবেদন করে আরতি করুন।

ফল এবং গাওয়া ঘি দিয়ে সিংহ রাশি শিবলিঙ্গের অভিষেক করুন। মিষ্টি ভোগ নিবেদন করুন।

ফল এবং গাওয়া ঘি দিয়ে সিংহ রাশি শিবলিঙ্গের অভিষেক করুন। মিষ্টি ভোগ নিবেদন করুন।

কন্যা রাশি ধুতরো, ভাং, আকন্দ, বেলপাতা দিয়ে শিবলিঙ্গে নিবেদন করুন। ৩টে গোটা ফল দিন।

কন্যা রাশি ধুতরো, ভাং, আকন্দ, বেলপাতা দিয়ে শিবলিঙ্গে নিবেদন করুন। ৩টে গোটা ফল দিন।

ফুলের পাঁপড়ি ভেজানো জল এবং ডাবের জল দিয়ে তুলা রাশি শিবলিঙ্গকে স্নান করান। বেলপাতা, নীলকন্ঠ, আতপ চাল এবং চন্দন নিবেদন করে আরতি করুন।

ফুলের পাঁপড়ি ভেজানো জল এবং ডাবের জল দিয়ে তুলা রাশি শিবলিঙ্গকে স্নান করান। বেলপাতা, নীলকন্ঠ, আতপ চাল এবং চন্দন নিবেদন করে আরতি করুন।

বৃশ্চিক রাশি শুদ্ধ গরুর দুধ দিয়ে শিবলিঙ্গকে স্নান করান। এরপর মধু, ঘি দিয়ে স্নান করানোর পরে পুনরায় জল দিয়ে স্নান করিয়ে পুজো এবং আরতি করুন।

বৃশ্চিক রাশি শুদ্ধ গরুর দুধ দিয়ে শিবলিঙ্গকে স্নান করান। এরপর মধু, ঘি দিয়ে স্নান করানোর পরে পুনরায় জল দিয়ে স্নান করিয়ে পুজো এবং আরতি করুন।

মধু ও গঙ্গাজল দিয়ে ধনু রাশি শুকনো বাদাম দিয়ে ভোগ দিন শিবলিঙ্গ স্নান করান। বেল পাতা, গোলাপ ইত্যাদি দিয়ে পুজো করে আরতি করুন।

মধু ও গঙ্গাজল দিয়ে ধনু রাশি শুকনো বাদাম দিয়ে ভোগ দিন শিবলিঙ্গ স্নান করান। বেল পাতা, গোলাপ ইত্যাদি দিয়ে পুজো করে আরতি করুন।

মকর রাশি শিবলিঙ্গকে শষ্য অথবা গম নিবেদন করে পুজো করুন। এর পরে ওই শষ্য দুঃস্থদের মধ্যে বিতরণ করুন। তিন প্রহরে শিবলিঙ্গে জল ঢালুন। সকল বাধা দূর হবে।

মকর রাশি শিবলিঙ্গকে শষ্য অথবা গম নিবেদন করে পুজো করুন। এর পরে ওই শষ্য দুঃস্থদের মধ্যে বিতরণ করুন। তিন প্রহরে শিবলিঙ্গে জল ঢালুন। সকল বাধা দূর হবে।

প্রতি প্রহরে একে একে গঙ্গাজল, ঘি, মধু ও দুধ দিয়ে শিবলিঙ্গ স্নান করান। এরপর সাদা এবং কালো তিল নিবেদন করুন। ধুতরো ফুল দিয়ে পুজো করুন।

প্রতি প্রহরে একে একে গঙ্গাজল, ঘি, মধু ও দুধ দিয়ে শিবলিঙ্গ স্নান করান। এরপর সাদা এবং কালো তিল নিবেদন করুন। ধুতরো ফুল দিয়ে পুজো করুন।

মীন রাশি নিঁখুত বেলপাতা দিয়ে পুজো করুন। নারকোলের জল দিয়ে শিবলিঙ্গ স্নান করান। নির্জলা উপবাস থেকে সন্ধ্যেবেলায় পুজো করুন। সকল বাধা বিপত্তি দূর হবে সহজেই।

মীন রাশি নিঁখুত বেলপাতা দিয়ে পুজো করুন। নারকোলের জল দিয়ে শিবলিঙ্গ স্নান করান। নির্জলা উপবাস থেকে সন্ধ্যেবেলায় পুজো করুন। সকল বাধা বিপত্তি দূর হবে সহজেই।

loader