পুরাণ মতে প্রতিদিন সকালে এই ৫ টি নিয়ম, প্রতিটি কাজে আনবে সাফল্য

First Published 11, Jul 2020, 10:05 AM

হিন্দুধর্মের ১৮টি মহাপুরাণের মধ্যে গরুড় পুরাণ হল অন্যতম। এটি সংস্কৃত ভাষায় রচিত একটি বৈষ্ণব ধর্মগ্রন্থ। এই গ্রন্থে প্রধানত হিন্দু দেবতা বিষ্ণুর লীলা বর্ণনা করা হলেও এটিতে সকল দেবদেবীরই মাহাত্ম্য কীর্তন করা হয়েছে। এই গ্রন্থের আদিতম পাঠটি সম্ভবত খ্রিস্টীয় প্রথম সহস্রাব্দের রচনা। কিন্তু পরবর্তীকালে দীর্ঘ সময় ধরে এটি সংশোধিত ও বিবর্ধিত হয়ে থাকবে। গরুর পুরাণে আদর্শ জীবন ও মৃত্যুর পরে ঘটে যাওয়া বিষয়গুলির বর্ণনা দেওয়া হয়েছে। এই পুরাণ অনুসারে, প্রত্যেকের সারাদিনের কাজে কিছু বিষয় অন্তর্ভুক্ত করা উচিত। বিশেষত সকালে বিশেষ ৫ টি নিয়ম দিয়ে দিনের শুরু করা উচিত। এতে প্রতিটি কাজে আসে সাফল্য। পাশাপাশি দিনটি হয়ে ওঠে শান্তিময়। জেনে নেওয়া প্রতিদিন সকালের বিশেষ এই পাঁচটি নিয়ম সম্পর্কে।

<p> স্নান- স্নান মানুষের প্রতিদিনের নিয়মের মধ্যে সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ একটি নিয়ম। পুরাণ অনুসারে প্রতিদিন সকাল ঘুম থেকে উঠে স্নান করে দিন শুরু করা উচিত। যে ব্যক্তি সকালে স্নান করে তার দিন শুরু করেন তার পুরো দিনটি শুভ হয় এবং শক্তিতে ভরে ওঠে।</p>

 স্নান- স্নান মানুষের প্রতিদিনের নিয়মের মধ্যে সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ একটি নিয়ম। পুরাণ অনুসারে প্রতিদিন সকাল ঘুম থেকে উঠে স্নান করে দিন শুরু করা উচিত। যে ব্যক্তি সকালে স্নান করে তার দিন শুরু করেন তার পুরো দিনটি শুভ হয় এবং শক্তিতে ভরে ওঠে।

<p>দান- অনেক ধর্মগ্রন্থ ও পুরাণে দানশীলতার গুরুত্ব উল্লেখ করা হয়েছে। প্রত্যেকের প্রতিদিন তাদের সাধ্য অনুযায়ী কিছু দান করা উচিত। এটি করে, কখনও অর্থ ও শস্যের ঘাটতি হয় না এবং ঘরে শান্তি এবং সুখ থাকে।<br />
 </p>

দান- অনেক ধর্মগ্রন্থ ও পুরাণে দানশীলতার গুরুত্ব উল্লেখ করা হয়েছে। প্রত্যেকের প্রতিদিন তাদের সাধ্য অনুযায়ী কিছু দান করা উচিত। এটি করে, কখনও অর্থ ও শস্যের ঘাটতি হয় না এবং ঘরে শান্তি এবং সুখ থাকে।
 

<p>প্রদীপ স্থাপন- হিন্দু ধর্মগ্রন্থ অনুসারে, প্রত্যেকের বাড়ির শান্তির জন্য তাদের প্রতিদিন সকালে ও সন্ধ্যায় নিয়ম করে প্রদীপ স্থাপন করা উচিত। যদি প্রতিদিন দুবেলা প্রদীপ স্থাপন সম্ভব না হয় তবে কমপক্ষে একবার ঈশ্বরের সামনে প্রদীপ স্থাপন করা উচিত। এর ফলে একজন ব্যক্তি অবশ্যই তার সমস্ত কাজে সাফল্য পাবেন। কোনও কাজেই তার বাধা আসবে না।</p>

প্রদীপ স্থাপন- হিন্দু ধর্মগ্রন্থ অনুসারে, প্রত্যেকের বাড়ির শান্তির জন্য তাদের প্রতিদিন সকালে ও সন্ধ্যায় নিয়ম করে প্রদীপ স্থাপন করা উচিত। যদি প্রতিদিন দুবেলা প্রদীপ স্থাপন সম্ভব না হয় তবে কমপক্ষে একবার ঈশ্বরের সামনে প্রদীপ স্থাপন করা উচিত। এর ফলে একজন ব্যক্তি অবশ্যই তার সমস্ত কাজে সাফল্য পাবেন। কোনও কাজেই তার বাধা আসবে না।

<p>মন্ত্র জপ- এই মন্ত্র জপ করার জন্য প্রত্যেকের কাজের থেকে সময় বের করে কিছুটা সময় নেওয়া উচিত। যে কোনও একটি মন্ত্রের নিয়ম নির্বিশেষে এটি প্রতিদিন জপ করুন। পূর্ণ নিষ্ঠা ও বিশ্বাসের সঙ্গে জপ কখনই বৃথা যায় না। মানুষ অবশ্যই তার জপের শুভ ফল পায়। এক্ষেত্রে আপনি মহামৃত্যুঞ্জয় মন্ত্র অথবা গায়ত্রী মন্ত্র জপ করতে পারেন।</p>

মন্ত্র জপ- এই মন্ত্র জপ করার জন্য প্রত্যেকের কাজের থেকে সময় বের করে কিছুটা সময় নেওয়া উচিত। যে কোনও একটি মন্ত্রের নিয়ম নির্বিশেষে এটি প্রতিদিন জপ করুন। পূর্ণ নিষ্ঠা ও বিশ্বাসের সঙ্গে জপ কখনই বৃথা যায় না। মানুষ অবশ্যই তার জপের শুভ ফল পায়। এক্ষেত্রে আপনি মহামৃত্যুঞ্জয় মন্ত্র অথবা গায়ত্রী মন্ত্র জপ করতে পারেন।

<p><strong>মহামৃত্যুঞ্জয় মন্ত্র- </strong></p>

<p>ওঁ ত্র্যম্বকম যজামহে সুগন্ধিম পুষ্টিবর্ধনম্।<br />
উর্বারুকমিব বন্ধনান্ মৃত্যৌর্মুক্ষীয় মামৃতাত্।।</p>

<p><strong>গায়ত্রী মন্ত্র -</strong></p>

<p>ওঁ ভূর্ভুবঃ স্বঃ তৎ সবিতুর্বরেণ্যং<br />
ভর্গো দেবস্য ধীমহি ধিয়ো য়ো নঃ প্রচোদয়াৎ।।</p>

মহামৃত্যুঞ্জয় মন্ত্র- 

ওঁ ত্র্যম্বকম যজামহে সুগন্ধিম পুষ্টিবর্ধনম্।
উর্বারুকমিব বন্ধনান্ মৃত্যৌর্মুক্ষীয় মামৃতাত্।।

গায়ত্রী মন্ত্র -

ওঁ ভূর্ভুবঃ স্বঃ তৎ সবিতুর্বরেণ্যং
ভর্গো দেবস্য ধীমহি ধিয়ো য়ো নঃ প্রচোদয়াৎ।।

<p>গৃহদেবতার পুজো- প্রতিদিন দেবদেবীর উপাসনা করা হিন্দু ধর্মের একটি আচার। প্রতিদিন সকালে স্নান করে ঈশ্বরের উপাসনা করা উচিত এবং পুজো করা উচিত। এর ফলে ঈশ্বরের অনুগ্রহ সর্বদা পরিবারের উপর বজায় থাকে এবং পরিবারে যে সমস্যাগুলি আসে সেগুলি স্বয়ংক্রিয়ভাবে শেষ হতে শুরু করে। সুতরাং, প্রতিদিন ঈশ্বরের উপাসনা করুন। জীবনে ভরে উঠবে সুখ ও সমৃদ্ধিতে।</p>

গৃহদেবতার পুজো- প্রতিদিন দেবদেবীর উপাসনা করা হিন্দু ধর্মের একটি আচার। প্রতিদিন সকালে স্নান করে ঈশ্বরের উপাসনা করা উচিত এবং পুজো করা উচিত। এর ফলে ঈশ্বরের অনুগ্রহ সর্বদা পরিবারের উপর বজায় থাকে এবং পরিবারে যে সমস্যাগুলি আসে সেগুলি স্বয়ংক্রিয়ভাবে শেষ হতে শুরু করে। সুতরাং, প্রতিদিন ঈশ্বরের উপাসনা করুন। জীবনে ভরে উঠবে সুখ ও সমৃদ্ধিতে।

loader