19

৫৬-তে পা দিলেন বলিউডের ভাইজান সলমন খান। তবে প্রতিবারের মতো এবারের জন্মদিনের আগে পানভেল ফার্ম হাউজেই সময় কাটান সলমন খান (Happy Birthday Salman Khan )। এবারও তেমনটাই করেছিলেন। তবে জন্মদিনের কয়েকঘন্টা আগে ঘটে গেল ভয়ঙ্কর কান্ড। 

Subscribe to get breaking news alerts

29


একদিকের  পানভেলের ফার্ম হাউজে ভাইজানের জমকালো পার্টির আয়োজন চলছে। এর মধ্যে আচমকা শোনা যায় বিষধর সাপে কেটেছে সলমন খানকে (Happy Birthday Salman Khan) , এই খবর শোনা মাত্রই শোরগোল পড়ে যায়। ভাইজানকে নিয়ে তার পর থেকেই ঘুম উড়েছে ভক্তদের।

39

তবে জন্মদিনের ভোররাতেই (Happy Birthday Salman Khan)  চওড়া হাসি মুখেই সংবাদমাধ্যমের সামনে এসেছেন সলমন। মুখে হাসি নিয়েই অভিনন্দন বিনিময়ের পালা সারলেন বলিউডের ভাইজান।  পাপারাৎজির ক্যামেরায় হাসিমুখে পোজ দিলেন ভাইজান। তবে ভাইজান এও বলেন, সাপে কামড়ানোর পর এমন হাসি ধরে রাখা খুব শক্ত।

49


সলমনের সাপ কামড়ানোর খবর দিতে গিয়ে বাবা সেলিম খান (Salim Khan) জানিয়েছিলেন, ওই সাপটি বিষধর ছিল না। তবে সলমন  (Salman Khan) পুরোপুরি উল্টো সুর গাইলেন। সলমন বলেন, সাপটি নাকি বিষাক্ত ছিল। এবং একবার নয়, বরং তিনবার নাকি সাপের কামড় খেয়েছেন তিনি।

59


পানভেলের ফার্ম হাউজের বাইরে মিডির ভিড় উপচে পড়ছে। সেই সময়েই মিডিয়াকে সলমন জানান ( Salman Khan) , 'একটা সাপ আমার ফার্মহাউজে ঢুকে পড়েছিল। আমি লাঠির সাহায্যে সেটাকে বাইরে নিয়ে আসি। এবং সেটা আমার হাত পর্যন্ত উঠে আসে। আমি সাপটাকে ছাড়াতে গিয়েই সাপটা আমাকে তিনবার কামড়ে দেয়' । 

69

সলমন (Happy Birthday Salman Khan) আরও বলেন, ওটা প্রচন্ড বিষধর ছিল। 'আমি ৬ ঘন্টা হাসপাতালে ভর্তি ছিলাম। এখন আগের থেকে অনেকটা ঠিক আছি'। জন্মদিনের আগে সলমনের এই খবরে ঘুম উড়ে গিয়েছিল ভক্তদের। যদিও সলমনের হেলথ আপডেট পেয়ে এখন অনেকটাই স্বস্তি ভক্তমহলে।

79

সাপে কামড়ানোর পরই সলমনকে  ( Salman Khan)  নবী মুম্বইয়ের এক বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তারপর প্রাথমিক চিকিৎসা চালানোর পর ৬ ঘন্টা পর  ছেড়ে দেওয়া হয়।

89

 এখন পুরোপুরি সুস্থ রয়েছেন ভাইজান (Salman Khan)। এবং সূত্রের খবর, হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাওয়ার পর ঘনিষ্ঠদের নিয়ে পার্টি ও করেন ভাইজান।

99

শুটিংয়ের ব্যস্ততা না থাকলে শহরের কোলাহল থেকে দূরে এই খামার বাড়িতেই সময় কাটাতে ভালবাসেন ভাইজান।  তবে ৫৬-র জন্মদিনে পানভেল ফার্ম হাউজে এই ভয়ঙ্কর অভিজ্ঞতা সারাজীবন মনে থাকবে ভাইজান সলমন খানের (Salman Khan)।