19

এটা একটা পিআর পদক্ষেপ, একটা প্ল্যাটফর্মের প্রয়োজন ছিল গল্পটা প্রকাশ্যে আনার জন্য, এইটুকুই। বেশ কিছু মিডিয়াকেও দেখা গেল ঘটনার এক ভিন্ন মোড় তুলে ধরতে, কেউ আবার সারমর্মে রিয়ার পক্ষেই সুর চরালেন। জানালেন বিশাল...

Subscribe to get breaking news alerts

29

তবে এই সবটাই হল ড্রাগের প্রসঙ্গ উঠে আসার পর থেকে। বেশ কিছু 'চামচারা' মাথাচারা দিয়ে উঠেছে তাঁদের মাথাকে বাঁচাতে...

39

এবার প্রসঙ্গ তাঁদের জবাব দেওয়া, অনেক বিষয় লক্ষ্য করা গিয়েছে, কিন্তু কয়েকটি নিয়েই বিশাল কৃতি কথা বললেন.... 

49

মুম্বই পুলিশ- প্রথম প্রসঙ্গ উঠে আসে মুম্বই পুলিশের ভুমিকা ঘিরে। কেন ময়না তদন্তের রিপোর্টে উল্লেখ নেই মৃত্যুর সময়। এরপর আসে আরও এক মিথ্যাচার। সুশান্ত মৃত্যুর আগে গুগুলে খুঁজেছিল যন্ত্রণাহীন মৃত্যুর উপায়। যা আদোপে ভুল। সুশান্ত খুঁজেছিল, হিমাচল, কেরালাতে জমি। কেন মুম্বই পুলিশ এই ধরনের কাজ করেছে, তা প্রশ্নের মুখে থেকেই যায়। বিশালের দাবি, তিনি মেন্টাল হেলথ নিয়ে অনেক পড়াশুনা করেছেন, এটা হয় খুন নয়তো আত্মহত্যার প্ররচনা। 

59

মাদক সূত্র- মাদক নিয়ে কথা উঠতেই একাধিক সুশান্ত সম্পর্কে তথ্য সামনে আসতে থাকে। সুশান্ত সিং রাজপুত নাকি ওষুধ খেতেন না সময় মত। তা নিয়ে তাঁকে তেমন কিছু বলা হয়নি, অথচ তিনি যখন মাদক নিতেন তখন কেন তাঁকে বাধা দেওয়া হল না। বিষয়টা ঘুরিয়ে দেখলে এটাও দাঁড়াতে পারে যে, সুশান্ত মে মাসের শেষ থেকে ভালো হয়ে উঠছিলেন। সেই কারণেই তিনি আর মাদক সেবন করতে চাননি। তাঁকে জোর করা হলে তিনি ব্ল্যাকমেইল করতে শুরু করেন। যা থেকে পরবর্তীতে সমস্যায় পরেন মূল অভিযুক্ত। তিনি সুশান্তের এটিএম কার্ডের পাসওয়ার্ড পাল্টানোর চেষ্টা করেন। এরপরই সুশান্ত তাঁকে বাড়ি থেকে বের করে দেন। 

69

সুশান্তের পরিবারের সঙ্গে বিচ্ছেদ- সুশান্তকে রিয়া কন্ট্রোল করত এই নিয়ে কোনও দ্বিমত নেই। কিন্তু সুশান্তের পরিবারের সঙ্গে মনোমালিন্যের খবর মিথ্যে, তা সাফ জানিয়ে দিলেন বিশাল। তাঁর কথায় সুশান্ত পরিবারের সকলের সঙ্গেই থাকতে চাইতেন। কিন্তু রিয়া চক্রবর্তী যে সুশান্তকে হুমকি দিয়ে আটকে রাখতে, যার ফলে একাধিকবার টিকিট বাতিল করেছেন সুশান্ত। 

79

বাবার সঙ্গে সম্পর্ক- সুশান্তের বাবার সঙ্গে সুশান্তের সম্পর্ক নিয়েও মুখ খোলেন রিয়া চক্রবর্তী। তাঁর কথায় সুশান্তকে তাঁর বাবা পছন্দ করতেন না। তাই ছোটবেলাতেই তাঁকে কাছ ছাড়া করেছিলেন। কিন্তু আসল ঘটনা ঠিক এমনটা নয়। সুশান্তের বাবা সুশান্তকে তাঁর দিদি প্রিয়ঙ্কার কাছে লেখাপড়া করতে পাঠিয়েছিলেন দিল্লিতে। যাতে নিজের সেরাটা দিয়ে সুশান্ত কেরিয়ার তৈরি করতে পারি। প্রতিটা মধ্যবিত্ত পরিবারের মা-বাবাই সন্তানের জন্য এমনই চেষ্টা করে থাকেন। 

89

গাঁজার নেশা- রিয়া চক্রবর্তী সুশান্তের গাঁজার নেশা নিয়েও মন্তব্য করতে পিছু পা হননি। এই বিষয় আলোকপাত করে বিশাল জানিয়েছেন- রিয়ার কথায় তিনি গাঁজার নেশা করেন না, তাহলে যার প্রেমিকা গাঁজা পছন্দ করেন না তাহলে সুশান্ত কীভাবে তা নিতে পারেন! এক্ষেত্রে দুটি দিক হতে পারে, এক রিয়া তাঁকে জোর করে গাঁজা দিতেন, নয়তো রিয়া নিজেই গাঁজার নেশা করতেন, যা সুশান্তের অভ্যাস হয়ে যায়। 

99

মিসিং লিঙ্ক- ৮ থেকে ১৪ জুন পর্যন্ত ঠিক কী ঘটেছিল! এমনই প্রশ্ন সম্প্রতি তুলে ধরেছেন রিয়া চক্রবর্তী। এই সময় সুশান্তের দিদি মিতু ছিলেন সঙ্গে। রিয়ার কথায় ওই সময় তিনি কথা বলতে পারতেন সুশান্তের সঙ্গে, তাহলেন হয়তো এমন কিছু হত না। অথচ সুশান্তের দিদি ১২ তারিখে ফ্ল্যাট ছেড়ে চলে যায়, তারপর কেন কথা বলেননি রিয়ে, কারণ তিনি বোঝহয় আঁচ করেছিলেন খারাপ কিছু হতে চলেছে সুশান্তের সঙ্গে।