19

১. মুম্বই ইন্ডিয়ান্স-
প্রথম ম্যাচে চেন্নাইয়ের কাছে হেরে প্রতিযোগিতা শুরু করলেও, তারপর দুরন্তভাবে ফর্মে ফেরে রোহিত শর্মার দল। একের পর এক ম্য়াচ জিতে লিগ টপার হিসেবে প্লে অফে পৌছয় মুম্বই। প্লে অফে দিল্লিকে হারিয়ে ফাইনালে পৌছয় রোহিত শর্মার দল। ফাইনালে প্রথমে ব্যাট করে ১৫৬ করে দিল্লি ক্যাপিটালস। দিল্লির হয়ে অর্ধশতরান করেন শ্রেয়স আইয়র ও পৃথ্বি শ। জবাবে ১ ওভার ২ বল আগেই ৫ উইকেটে ম্যাচ জিতে পঞ্চমবার আইপিএল চ্যাম্পিয়ন হয় মুম্বই ইন্ডিয়ান্স। ফাইনালে দলের হয়ে অর্ধশতরান করেন রোহিত শর্মা। অধিনায়ক হিসেবে পঞ্চমবার ও প্লেয়ার হিসেবে ষষ্ঠবার আইপিএল জিতে অনন্য নজির সৃষ্টি করেন 'হিটম্যান'।

Subscribe to get breaking news alerts

29

২. দিল্লি ক্যাপিটালস-
এবারের আইপিএলে সকলকে চমকে দিয়ে দুরন্ত পারফর্ম করে তরুণ অধিনায়ক শ্রেয়স আইয়রের দিল্লি ক্যাপিটালস। মাঝে একটু ছন্দ পতন হলেও,ফাইনাল পর্যন্ত পৌছে যায় রাজধানীর দল। যদিও প্রথমবার আইপিএল জয়ের স্বপ্ন পূরণ হয়নি দিল্লির। মুম্বইয়ের বিরুদ্ধে ২০২০ আইপিএলে একটি ম্যাচও না জেতার রেকর্ড বজায় থাকে ফাইনালেও। দ্বিতীয় স্থানে থেকেই শেষ করতে হয় দিল্লিকে।
 

39

৩. সানরাইজার্স হায়দরাবাদ-
প্রতিযোগিতার শুরুতে নিজেদের চেনা ছন্দে ছিল না সানরাইজার্স হায়দরাবাদ দল। তবে শেষের দিকে ফর্মে ফেরে ডেভিড ওয়ার্নারের দল। গ্রপ পর্যায়ের শেষ তিন ম্যাচ জিতে কেকেআরকে পেছনে ফেলে প্লে অফে পৌছয় হায়দরাবাদ। প্লে অফেও আরসিবিকে হারিয়ে ফাইনালে ওঠার লড়াইতে দিল্লি ক্যাপিটালসের মুখোমুখি হয় সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। তবে সেই ম্যাচ হেরে তৃতীয় স্থানে থেকেই শেষ করতে হয় ডেভিড ওয়ার্নারের দলকে।
 

49

৪. রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু-
২০২০-তেও আইপিএল জয়ের স্বপ্ন অধরাই থেকে গেল বিরাট কোহলির রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের। প্রতিযোগিতার শুরুটা দুরন্ত করেছিল আরসিবি। কিন্তু শেষের দিকে একেবারেই নিজেদের সেরাটা দিতে পারেনি আরসিবির প্লেয়াররা। গ্রুপ ও প্লে অফ সহ টানা ম্যাচ হেরে প্রতিযোগিতা থেকে বিদায় নেয় বিরাট কোহলির দল। চতুর্থ স্থানে শেষ করে আরসিবি।

 

59

৫. কলকাতা নাইট রাইডার্স-
এবারের আইপিএল কলকাতা নাইট রাইডার্সের কাছে কাছে খুব একটা ভাল যায়নি। প্লে অফের ওঠার দাবিদার থাকলেও, শেষে নেট রান রেটের কারণে হায়দরবাদ কোয়ালিফাই করে প্লে অফে। কিন্তু ধারাবাহিকতার অভাবে এবার প্রথম থেকেই ভুগেছে কেকেআর। এছাড়া অধিনায়ক বদল, ওপেনি জুটি সমস্যা, ব্যাটিং-বোলিং কম্বিনেশেনরে সমস্যা একাধিক বিষয় ভুগিয়েছে নাইটদের। যেই কারণেই মরুদেশে আইপিএল জয়ের স্বপ্ন অধরা থেকে যায় ২ বারের আইপিএল চ্যাম্পিয়নদের।
 

69

৬. কিংস ইলেভেন পঞ্জাব-
আইপিএল ২০২০-র অন্যতম দাবিদার মনে করা হচ্ছিল কেএল রাহুলের কিংস ইলেভেন পঞ্জাব দলকে। কিন্তু প্রথম পর্বে পরপর ৬টি ম্যাচ হেরে চাপে পড়ে যায় পঞ্জাব। দ্বিতীয় পর্বে টানা ৫টি ম্যাচ জিতলেও, প্লে অফে ওঠার স্বপ্ন পূরণ হয়নি কিংস ইলেভেনের।বেশ কয়েকটি জেতা ম্যাচ হাত ছাড়া করার খেসারত দিতে হয় পঞ্জাবকে। ষষ্ঠস্থানে শেষ করে কে এল রাহুলের দল।
 

79

৭. চেন্নাই সুপার কিংস-
এবারের আইপিএলে এমএস ধোনি ও চেন্নাই সুপার কিংসের খেলা দেখার জন্য মুখিয়ে ছিল ক্রিকেট বিশ্ব। প্রথমে দলে করোনার থাবা ও পরে ২২ গজেও নিরাশ করে সিএসকে। লিগ পর্বে একের পর এক ম্যাচ হেরে গ্রুপ টেবিলের শেষে ছিল ৩ বারের আইপিএল চ্যাম্পিয়নরা। কিন্তু শেষে টানা তিনটি ম্যাচ জিতে ১২ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলের ৭ নম্বরে শেষ করে ধোনির দল।
 

89

৮. রজাস্থান রয়্যালস-
আইপিএলের প্রথম দুটি ম্যাচ শারজায় বিধ্বংসী ব্যাটিং করে ম্যাচ জিতেছিল রাজস্থান রয়্যালস। সকলেই ভেবেছিল এবার হয়তো চমক দেবে স্টিভ স্মিথের দল। কিন্তু পরের দিকে টানা ম্যাচ হেরে ১২ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলের একেবারে শেষে ৮ নম্বরে শেষ করে রয়্যালসরা।
 

99

করোনা পরিস্থিতিতে এবারের আইপিএল সত্যিই চ্যালেঞ্জ ছিল বিসিসআইয়ের কাছে। তবে তা সফলভাবেই আয়োজন করেছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। খেলার বিচারেও এবারের আইপিএল সব থেকে কঠিন লড়াই হয়েছে বলা চলে। কারণ প্লে অফে তৃতীয় ও চতুর্থ  দল সানরাইজার্স ও আরসিবির পয়েন্ট ও প্লে অফে উঠতে না পারা কেকেআরের পয়েন্ট একই ছিল। অপরদিকে শেষ তিনটি দল পঞ্জাব, চেন্নাই ও রাজস্থানের পয়েন্টও সমান। ফলে করোনা আবহে এবারের আইপিএল সবথেকে বেশি প্রতিদ্বন্দ্বীতামূলক ম্যাচ দর্শকদের উপহার দিয়েছে। নতুন বছরে দেশের মাটিতে আইপিএল দেখার অপেক্ষায় ক্রিকেট প্রেমিরা।