16

অনন্ত কুমার সিং
মোকামা আসনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন অনন্ত কুমার সিং। ২০০৫ ২০১০ সাল পর্যন্ত নীতিশ কুমারের জনতা দল ইউনাইটেড বা জেডিইউ প্রার্থী হিসেবে এই কেন্দ্র থেকে জিতেছিলেন। ২০১৫ সালে নীতিশ কুমার তাঁকে টিকিক দেননি। তারপরই নির্দল প্রার্থী হিসেবে ভোচে লড়াই করছিলেন। বর্তমানে তিনি লালুপ্রসাদ যাদবের রাষ্ট্রীয় জনতা দল বা আরজেডি প্রার্থী। ভূমিহারা ও যাদব অধ্যুষিত এই এলাকা স্থানীয় বাহুবলীকেই বিধায়ক হিসেবে নির্বাচিত করেছে। আগে এই কেন্দ্রের বিধায়ক ছিলেন অনন্ত কুমারের দাবি দিলীপ সিং। তিনি ছিলেন জনতা দলের প্রার্থী। 

 

Subscribe to get breaking news alerts

26

জিতান রাম মাজি
হিন্দুস্থান আওয়ামি মোর্চার প্রার্থী জিতান রাম মাজি। তাঁর প্রধান প্রতিপক্ষ আরজেডি প্রার্থী উদয় নারায়ণ চৌধুরী। জিতান রাম মাজি বিহার বিধানসভায় তাঁর দলের এক মাত্র সদস্য। নীতিশ কুমার তাঁর মূল প্রতিপক্ষ। ২০১৫ সালে ডেজিইউ নীতিশকে মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী ঘোষণা করার পরই তিনি দল ত্যাগ করেছিলেন। নতুন দল গঠন করে বিজেপির সঙ্গে হাত মিলিয়ে ২০১৫ সালে বিহার বিধানসভায় প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেছিলেন। কিন্তু ২০১৭ সালে নীতিশ আবার বিজেপির হাত ধরায় তিনি বিরোধী আসনে বসতে শুরু করেন। বর্তমান বিধানসভা নির্বাচনে জয় পাওয়া মাজির কাছে অত্যান্ত গুরুত্বপূর্ণ। 

 

36

শ্রেয়সী সিং 
কমনওয়েলথ গেমসে স্বর্ণপদক জয়ী শ্যুটার শ্রেয়সী সিং। বিহার বিধানসভা নির্বাচনই তাঁর রাজনৈতিক জীবনের হাতেখড়ি। জামুই বিধানসভা কেন্দ্রের প্রার্থী। মাত্র কয়েক দিন আগেই রাজনীতিতে নাম লিখিয়েধিলেন প্রাক্তন সাংসদ দিগ্বিজয় সিং-এর কন্যা। বিজেপির হয়েই নির্বাচনে লড়াই করেছেন শ্রেয়সী। 

46

প্রেম কুমার 
 প্রেম কুমার বিহারের কৃষি মন্ত্রী। গয়া বিধানসভা কেন্দ্র থেকে টানা ৬ বার নির্বাচনে জয়ের রেকর্ড রয়েছে তাঁর হাতে। তাঁর কারণে বিজেপির অভেদ্য দূর্গ হিসেবে নাম উঠেছে  এসেছে গয়ার। চলতি বিধানসভা নির্বাচনে আরও একবার পরীক্ষা করা হবে প্রেম কুমারের জনপ্রিয়তার। 

 

56

 জয় কুমার সিং
দিনারা কেন্দ্রের জেডি ইউ প্রার্থী জয় কুমার সিং। বিহারের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিভাগের মন্ত্রী তিনি। গত দুটি নির্বাচনে এই কেন্দ্র থেকেই জয় লাভ করেছিলেন তিনি। হ্যাট্রিকের অপেক্ষায় জয় কুমার। লোকজনশক্তি পার্টির টিকিকে লড়াই করেছেন তিনি। তাঁর প্রতিপক্ষা রাজেন্দ্র সিং। যিনি গত নির্বাচনে মাত্র ২৬০০ ভোটে হেরে গিয়েছিলেন। 

 

66

করোনাভাইরাসের মহামারির মধ্যে  কড়া নিরাপত্তা ও নিরাপদ শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখেই ৭১টি কেন্দ্র ভোট গ্রহণ হচ্ছে বিহারে। ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন ২.১৫ কোটি মানুষ। বেশ কয়েকটি নকশান অধ্যুষিত এলাকাও রয়েছে।